WHAT'S NEW?
Loading...

পুজোর কেনাকাটা টিপস

                                                              



প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ এসে গেছে হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। দূর্গাপূজা এলে সবার মধ্যে কেনাকাটার আমেজ দেখা যায়।আর  দূর্গাপূজা এলে তাই বাজারে বাড়তি ভিড়ও দেখা যায়। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে এই সময়ের কেনাকাটা  বছরের অন্য সময়ের চেয়ে বেশি আনন্দদায়ক হয়ে থাকে।তাই সবকিছু বিবেচনায় দূগাপূজার কেনাকাটার জন্য চাই কিছু বাড়তি প্রস্তুতি। এখানে দূর্গাপূজার কেনাকাটার কিছু টিপস তুলে ধরার চেষ্টা করছি।



কেনাকাটার প্রস্তুতি ও বাজেট 


পুজোর কেনাকাটা সহজে সম্পন্ন করার জন্য একটি বাজেট তৈরি করে ফেলুন। এছাড়া পুজোর কেনাকাটার বাজেট তৈরির আগে অনলাইনে বাজারের সর্বশেষ দরদাম সম্পর্কে জেনে নিন।আর বাজেট তৈরি করে পুজোর কেনাকাটা করলে সেটি আপনার জন্য বেশি সুবিধাজনক হবে।আর বাজেট ছাড়া পুজোর কেনাকাটা করতে গেলে আপনি বেকায়দায় পড়তে পারেন।


ব্রান্ড না ননব্রান্ড 


পুজোর কেনাকাটায় অধিকাংশ ক্ষেত্রে কাপড়, জুতো, মোবাইল ইত্যাদি সবচেয়ে বেশি কেনা হয়।আর এক্ষেত্রে কেনাকাটার আগে সিদ্ধান্ত নিন আপনি ব্রান্ডের না ননব্রান্ডের পণ্য   কিনবেন।ব্রান্ডের পণ্য কিনলে দাম ফিক্সড থাকবে এবং বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন।তবে ননব্রান্ডের পণ্য কিনলে দাম অনেকক্ষেত্রে বিক্রেতার ইচ্ছামাফিক হয়ে থাকে এবং বিক্রয়োত্তর সেবা পাওয়ার নিশ্চয়তা কম। যদিও ননব্রান্ডের পণ্য কিনলে অনেকক্ষেত্রে দরদাম করার সুযোগ থাকবে।তাই পুজোর কেনাকাটার আগে ব্রান্ড নাকি ননব্রান্ডের কাপড়, জুতো ইত্যাদি কিনবেন তা আগেই ঠিক করুন।



ঝোঁকের বশে কিছু কিনবেন না 


অনেকে পুজোর কেনাকাটায় ঝোঁকের বশে ভুল পণ্য কিনে ফেলেন যার জন্য পরবর্তীতে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। যেমন পুজোর বাজারে দোকানি   একটি নামকরা  ব্রান্ডের পণ্য আপনার কাছে বিক্রি করতে চাইল এবং আপনি পণ্যটির সুনাম শুনে কিনে ফেললেন কিন্তু পরবর্তীতে পণ্যটি ব্যবহার করে দেখলেন সেটি অনেক বেশি ভারি বা বেমানান । পুজোর কেনাকাটায় অসতর্ক হলে ঝোঁকের বশে ভুল পণ্য কিনে বেকায়দায় পড়তে পারেন।তাই পুজোর কেনাকাটার ক্ষেত্রে ঝোঁকের বশে কিছু না কেনাই ভালো।


নকল জিনিস কিনে ঠকবেন না 


পুজোর কেনাকাটায় অনেক লোভী ব্যবসায়ী নকল ব্রান্ডের পণ্য বিক্রির চেষ্টা করে।আর তাই পুজোর কেনাকাটায় নকল পণ্য কিনে যেন বেকায়দায় পড়তে না হয় সেটি খেয়াল রাখতে হবে।আর এক্ষেত্রে  বিশ্বস্ত ও সুপরিচিত মার্কেট বা  দোকান থেকে কেনাকাটা করুন।তবে যারা নকল পণ্য চিনতে পারেন তাঁরা যেকোন মার্কেট বা দোকান থেকেই কেনাকাটা করতে পারেন।


অনলাইনে কেনাকাটা 


যাদের কাজের ব্যস্ততা বেশি তাঁরা পুজোর বাজার অনলাইনেও করতে পারেন।তবে সক্ষেত্রে বিশ্বস্ত অনলাইন মার্কেট প্লেস থেকে পণ্য কেনার চেষ্টা করুন। তাছাড়া অনলাইনে অর্ডার দিয়ে সঠিক সময়ে পণ্যটি হাতে পাবেন কিনা সেটিও খেয়াল রাখুন । কেননা অনেকক্ষেত্রে অনলাইনে অর্ডার করে সময়মতো পণ্য হাতে নাও পেতে পারেন। সেইসাথে অনলাইনে কেনাকাটার সময় পণ্যটির বিক্রয়োত্তর সেবা ইত্যাদি রয়েছে কিনা তা জেনে নিন।



পুজোর কেনাকাটায় হুড়োহুড়ি নয় 


পুজোর কেনাকাটা সহজে ও সুলভে করতে চাইলে কিছুটা সময় নিয়ে বেরোতে হবে। কেননা অনেকক্ষেত্রে পুজোর কেনাকাটায় হুড়োহুড়ি করে ঠকে যেতে পারেন। তাই পুজোর কেনাকাটায় হাতে পর্যাপ্ত সময় রাখুন।একাধিক মার্কেট বা দোকান দেখে পণ্য ক্রয় করুন।এরফলে নিজের মনমতো ও বাজেট অনুযায়ী পুজোর কেনাকাটা সম্পন্ন করতে পারবেন।



কেনাকাটার সময় রশিদ নিন 


পুজোর কেনাকাটায় যেকোন পণ্য ক্রয় করার পর দোকানির কাছ থেকে পণ্যটির রশিদ নিন।কারণ রশিদ থাকলে পরবর্তীতে পণ্যটির কোন সমস্যা হলে‌ দোকানির কাছে কৈফিয়ত জানাতে পারবেন । এছাড়া রশিদ ছাড়া পণ্য ক্রয় করলে নকল পণ্য কেনার সম্ভাবনা  থাকে।তাই পুজোর কেনাকাটার সময় রশিদ নিতে ভুলবেন না।