WHAT'S NEW?
Loading...

রমজানের জীবনযাপন টিপস

                                                              





প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ এসে গেছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র রমজান।'প্রিয় ক্রিকেট ডটকম'এর পক্ষ থেকে  পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীদের রমজানের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। পবিত্র রমজান সবার ভালো কাটুক। এবং সেইসাথে  বিভিন্ন লাইফস্টাইল বিশেষজ্ঞের মতের আলোকে এখানে রমজানের জীবনযাপন নিয়ে কিছু টিপস তুলে ধরছি।


সবকাজের একটি পরিকল্পনা করুন



এই সময়ে কর্মক্ষেএ, বাজার ইত্যাদি কাজে অবশ্যই হুড়োহুড়ি করবেন না। কারণ হুড়োহুড়ি করতে যেয়ে অহেতুক কোন বিড়ম্বনায় পড়তে পারেন।তাই এই সময়ে আগেই সব কাজের একটি তালিকা তৈরি করে রাখুন।কখন কর্মক্ষেএে যাবেন এবং কিভাবে নৈমিত্তিক অন্যান্য কাজ সমাধা করবেন সেটি আগেই পরিকল্পনা করুন ।


সব বাজার একসাথে নয় 



রমজানের সময় সাধারণত একসাথে সব বাজার সেরে ফেলার একটি প্রবণতা থাকে ।তবে এই প্রবণতা অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাজারে অস্থিতিশীলতা তৈরি করে থাকে। এছাড়া গরম পড়ে গেছে আর এই মুহূর্তে একসাথে অধিক পরিমাণে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্ৰী কিনলে বহু দ্রব্য নষ্ট হওয়ার আশংকা থাকে।তাই রমজানের এই সময়ে সাপ্তাহিক বাজার করতে পারেন।আর এর ফলে বাজারে চাপ পড়বে না ও দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে।



খাবারে চিনি,অধিক ভাজাপোড়া কমিয়ে দিন 



রমজানে সবচেয়ে বড় একটি বিষয় হচ্ছে সুস্থ থাকা।আর এই সময়ে শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য খাবারে চিনির ব্যবহারে কিছুটা সতর্ক হতে হবে। লাইফস্টাইল বিশেষজ্ঞদের মতে এই সময়ে চিনিযুক্ত, অতিরিক্ত লবণযুক্ত ,ভাজা ও অধিক মশলাদার খাবার কম খাওয়া ভালো।বিশেষত এই সময়ে অধিক তেলে ভাজা খাবার এড়িয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। এছাড়া এই সময়ে চিপস,সফটড্রিংস এড়িয়ে চলুন।এর ফলে হজমশক্তি বাড়বে ও মুড ভালো থাকবে।



ধীরে ধীরে খাবার গ্ৰহন করুন 



এই সময়ে যেকোন খাবার ধীরে ধীরে যথেষ্ট সময় নিয়ে খাওয়ার চেষ্টা করুন।কারণ লাইফস্টাইল বিশেষজ্ঞদের মতে যেকোন খাবার ধীরে ধীরে ও সময় নিয়ে খেলে তা ভালো ভাবে হজম হয় এবং এর ফলে শরীর ও মন ভালো থাকে।



প্রচুর পানি পান করুন 



রমজানের এই সময়ে খাবার গ্ৰহনের আগে ও  পরে  প্রচুর পানি পান করুন।কারণ গরমের এই সময়ে শরীর পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে আর এরফলে অসুস্থ হওয়ার আশংকা থাকে।তাই এই সময়ে খাবার গ্ৰহনের আগে ও পরে যথেষ্ট পরিমাণে পানি পান করুন।



বাইরের খাবার এড়িয়ে চলুন 



রমজানের এই সময়ে বাজারে প্রচুর পরিমাণে মুখোরোচক ও অধিক মশলাদার খাবার পাওয়া যায় যা অনেকসময় শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে উঠে।তাই এই সময়ে বাজারে যেখানে সেখানে খাবার কিনতে যাবেন না কারণ এরফলে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাবে।আর বাইরের খাবার থেকে সহজেই ডায়রিয়া ইত্যাদিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।


সুন্দর জীবনযাপন চর্চা করুন 



রমজানের এই সময়ে সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপন চর্চা করুন। সঠিক সময়ে সঠিক কাজটি করার চেষ্টা করুন এবং এরফলে বছরের অন্য সময়ে এগুলো চমৎকার সহায়তা করবে। নিজের সবকাজে একটি রুটিন মেনে চলুন এবং এরফলে রমজান আরও উপভোগ্য হয়ে উঠবে। এছাড়া এই সময়ে বন্ধু ও আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষার চেষ্টা করুন।



দরিদ্রদের সহায়তা করুন 



যেহেতু রমজান মাসটি বছরের অন্য সময়ের চেয়ে ভিন্ন তাই এই সময়ে গরীব ও দুস্থ মানুষের জন্য বিভিন্নভাবে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন।আর এরফলে নিজের মানসিক সন্তুষ্টি বেড়ে যাবে ।


জটিল রোগীরা ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন 


বয়স্ক ও জটিল রোগীদের এই সময়ে যথেষ্ট সচেতন থাকতে হয়।কারণ সামান্য ভুলে এই সময়ে পুরনো জটিল রোগ  বেড়ে যেতে পারে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে জটিল রোগীদের অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলার চেষ্টা করা উচিত। এছাড়া এই সময়ে যাদের পরিবারে জটিল রোগী রয়েছে তাদেরকে অবশ্যই নিকটবর্তী হাসপাতালগুলোর ফোন নম্বর হাতের কাছে রাখা উচিত।



সরকারী নির্দেশনা মেনে চলুন 



এই সময়ে নিজের ও আশপাশের মানুষের ভালোর জন্য সবক্ষেত্রে সরকারী নির্দেশনা মেনে চলুন।রাস্তায় চলতে পার্কিং বিধি ইত্যাদি মেনে চলুন। ট্রাফিক আইন মেনে চলুন।এরফলে আপনি যেমন ভালো থাকবেন তেমনি আপনার আশপাশের মানুষও থাকবে।