WHAT'S NEW?
Loading...

টি২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে কে এগিয়ে

                                                                   



প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ আজ ২০২১ ম্যানস টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল। ফাইনালে মুখোমুখি হবে অষ্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। দুদলই বেশ কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে  ফাইনালে পৌঁছেছে।কারণ এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফ্ল্যাট উইকেটে ধারণা করা হয়েছিল যে এশিয়ার টিমগুলোই ফাইনাল খেলবে কিংবা ফাইনালে অন্তত এশিয়ার একটি টিম থাকবে।তবে বাস্তবতা হচ্ছে এশিয়ার অন্যতম শক্তিশালী  টিম ভারত সুপার টুয়েলভের গন্ডি পেরোতে পারেনি এছাড়া পাকিস্তান বেশ এগ্ৰেসিভ ক্রিকেট খেললেও সেমিফাইনালে হেরে গেছে।এর বাইরে ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজকেও অনেকে ফাইনালে দেখেছিলেন যদিও এই তিন বড় টিমও ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে। যাহোক এখন সব হিসেবনিকেশ ও মাঠের লড়াইয়ের পর দেখার বিষয় ফাইনালে অষ্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে কে জিততে পারে টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের শিরোপা।




দুদলের এবারের বিশ্বকাপ পারফরম্যান্স



এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের শুরুটা বেশ ভালো ছিল। কারণ সুপার টুয়েলভের প্রতিটি ম্যাচেই দারুণ ক্রিকেট খেলেছে দলটি। বিশেষত ভারতকে হারিয়ে তাদের আত্মবিশ্বাসী চেহারা দারুণভাবে ফুটে উঠে।এরই ধারায় কিউইরা সুপার টুয়েলভের গন্ডি বেশ সাবলিল ভঙ্গিতে পেরিয়ে যায়। নিউজিল্যান্ড এই টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে ইতিমধ্যে ৬টি ম্যাচ খেলে ৫টিতে জয়লাভ করে এবং ১টি ম্যাচে হেরে যায়।অষ্ট্রেলিয়াও এবার কিছুটা কাকতালীয়ভাবে টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছে যায়।কারণ বিশ্বকাপের আগে অষ্ট্রেলিয়ার দলীয় পারফরম্যান্স ততটা আশাব্যঞ্জক ছিল না যদিও বিশ্বকাপ মাঠে গড়ালে অসিদের কৌশলী ক্রিকেট সবাইকে মুগ্ধ করে।অষ্ট্রেলিয়া এই টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে ৬ ম্যাচ খেলে ৫টিতে জিতেছে এবং ১টি ম্যাচে হেরেছে।



ব্যাটিং শক্তিমত্তা


সুপার টুয়েলভ থেকে সেমিফাইনাল পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং বেশ ভালো ছিল।বিশেষত সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ড দারুণভাবে ফেবারিট ইংল্যান্ডকে পরাজিত করে।আর এক্ষেত্রে নিউজিল্যান্ডের টপঅর্ডার থেকে লেট মিডল অর্ডার পর্যন্ত প্রায় প্রতিটি ব্যাটার দায়িত্বশীল ক্রিকেট খেলেছে। এবার কিউইদের ব্যাটিংয়ের নেতৃত্ব দিচ্ছেন যথাক্রমে ডারেল মিচেল (৬ ম্যাচে ১৯৭ রান), গাপটিল (৬ ম্যাচে ১৮০ রান),কেন উইলিয়ামসন (৬ ম্যাচে ১৩১ রান),গ্লেন ফিলিপস (৬ ম্যাচে ৮৭রান)। এছাড়া ইনজুরির জন্য ফাইনালের আগে ছিটকে যাওয়া ডেভন কনওয়েও এবার কিউইদের ব্যাটিংয়ে দারুণ সহায়তা করেছেন। অষ্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইনআপের নেতৃত্বে রয়েছেন মারকুটে ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার (৬ ম্যাচে ২৩৬ রান)। এছাড়াও অষ্ট্রেলিয়ার এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের ব্যাটিংয়ে মিশেল মার্শ,অ্যারন ফিঞ্চ, স্টয়নিস বেশ ভালো করছেন ।এর বাইরে অসিদের ব্যাটিং লাইনআপে ম্যাক্সওয়েল,স্টিভ স্মিথের মত তারকা টিটুয়েন্টি ব্যাটার রয়েছেন। সবকিছু মিলিয়ে বলা যায় ফাইনালে অষ্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড দুদলের ব্যাটিং লাইনআপই বেশ তারকাসমৃদ্ধ ও অভিজ্ঞ।



বোলিং শক্তিমত্তা


টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের মত তুমুল উত্তেজনাপূর্ণ ক্রিকেট লড়াইয়ের ফাইনালে বোলিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ এক প্রভাবক। এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্ট টিমের বোলিং শক্তিমত্তায় দৃষ্টি দিলে দেখা যায় দুদলেই একাধিক বিশ্বসেরা টিটুয়েন্টি বোলার রয়েছেন। নিউজিল্যান্ডের বোলিং অ্যাটাকে বোল্ট (৬ ম্যাচে ১১ উইকেট),ইস সোদি (৬ ম্যাচে ৯ উইকেট),টিম সাউদির(৬ ম্যাচে ৮ উইকেট) মত তারকা বোলার রয়েছেন এবং এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে এদের প্রত্যেকেই চমৎকার বোলিং করছেন। এছাড়া অষ্ট্রেলিয়ার বোলিং অ্যাটাকে মিশেল স্ট্রার্ক(৬ম্যাচে ৯ উইকেট),এডাম জাম্পা (৬ ম্যাচে ১২ উইকেট),মার্ক হার্জেলউডের(৬ ম্যাচে ৮ উইকেট) মত তারকা ও অভিজ্ঞ বোলার রয়েছেন। এবং ফাইনালে দুদলের বোলিং শক্তিমত্তায় খুব বেশি পার্থক্য নেই একথা বলাই যায়।



ফিল্ডিং ও ফিনিশিং 


টিটুয়েন্টি ক্রিকেটে ভালো ফিল্ডিং খুব গুরুত্বপূর্ণ। এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপেও বারবার দেখা গেছে যে ফিল্ডিংয়ের দুর্বলতা বহু জেতা ম্যাচকে হারের গর্তে ফেলে দিয়েছে।তাই ফাইনালে জয়লাভ করতে হলে দুদলকেই ফিল্ডিংয়ে গুরুত্ব দিতে হবে।যদিও ফিল্ডিংয়ে এক বিশ্বসেরা টিম হিসেবে নিউজিল্যান্ডের সুনাম রয়েছে।অষ্ট্রেলিয়াও কিন্তু ফিল্ডিংয়ে পিছিয়ে নেই। আজকের ফাইনালে আরেকটি বিষয় প্রভাবক হয়ে উঠতে পারে আর সেটি হচ্ছে ফিনিশিং। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে দারুণ একটি ফিনিশিং টাচ দিয়েছেন ডারেল মিচেল। অনুরূপভাবে সেমিফাইনালে অষ্ট্রেলিয়ার ফিনিশিংয়ে স্টয়নিস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।ফলে এক্ষেত্রে দুদলের সামর্থ্য নিয়ে কোন সংশয় নেই।



পাওয়ারপ্লে ব্যাটিং


আজকের ফাইনালে পাওয়ারপ্লে ব্যাটিং গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। এক্ষেত্রে দুদলই  স্পিন দিয়ে পাওয়ারপ্লের রান আটকাতে চাইবে।আর এক্ষেত্রে যে টিম ভালো করবে তার এগিয়ে থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। উল্লেখ্য এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে গড় পাওয়ারপ্লের রান সংগ্রহে সবার শীর্ষে রয়েছে আফগানিস্তান(৫১.৩)। এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে অষ্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের গড় পাওয়ারপ্লের রান যথাক্রমে ৩৭.৩ ও ৪৩.০।