WHAT'S NEW?
Loading...

বিশ্বকাপের আগে টিমগুলোর টিটুয়েন্টি পরিসংখ্যান

                                                                 


প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ অবশেষে সব বাধাবিপত্তি পেরিয়ে টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের চূড়ান্ত লড়াইয়ের দিনক্ষণ ঠিক হয়েছে। এবং এর অংশ হিসেবে টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের ভেন্যু,ম্যাচসূচি ইত্যাদিও চূড়ান্ত করা হয়েছে। এছাড়া টিমগুলো তাদের বিশ্বকাপ স্কোয়াড নিয়ে চূড়ান্ত লড়াইয়ে মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিশ্বকাপের আগে টিমগুলোর টিটুয়েন্টি পরিসংখ্যান, জয়-পরাজয়ের হিসেবনিকেশ ইত্যাদি এখানে তুলে ধরছি।


বাংলাদেশ

বাংলাদেশ এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে অন্যতম শিরোপাপ্রত্যাশী টিম। বাংলাদেশ ইতিমধ্যে ১১২টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৪১ ম্যাচে জয় ও ৬৯টি ম্যাচে হার রয়েছে। এছাড়া দুটি ম্যাচে ফল আসেনি।


ভারত

ভারত এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের সবচেয়ে শক্তিশালী টিমগুলোর একটি। ভারত ইতিমধ্যে ১৪৫টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে। আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে ভারত ৮৯টি ম্যাচে জিতেছে এবং ৪৯টি ম্যাচে হেরেছে এছাড়া ৮টি ম্যাচে ফল আসেনি।


ইংল্যান্ড


ইংল্যান্ড এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে হট ফেভারিট টিমগুলোর একটি। ইংল্যান্ডের আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ইতিহাস দেখলে দেখা যায় দলটি ১৩৭টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৭১ জয় ও ৫৯ পরাজয় রয়েছে। এছাড়া ৭টি ম্যাচে ফল নিষ্পত্তি হয়নি।


অষ্ট্রেলিয়া


অষ্ট্রেলিয়া এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে অন্যতম শিরোপাপ্রত্যাশী টিম।অষ্ট্রেলিয়া ইতিমধ্যে ১৪৬টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৭৩ জয় ও ৬৮ ম্যাচে হার রয়েছে। এছাড়া ৫টি ম্যাচে ফল নিষ্পত্তি হয়নি।


দক্ষিণ আফ্রিকা


এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম হটফেবারিট টিম দক্ষিণ আফ্রিকা। দক্ষিণ আফ্রিকা ইতিমধ্যে ১৪২টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ৮১টি ম্যাচে জয় পেয়েছে এবং ৫৯টি ম্যাচে হেরেছে। এছাড়া ২টি ম্যাচে ফল আসেনি।



ওয়েস্ট ইন্ডিজ


টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয় টিম ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাদের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের নজির রয়েছে।এই দলটি ইতিমধ্যে ১৪৪টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ৬২টি ম্যাচে জয় ও ৭০টি ম্যাচে হেরেছে। এছাড়া ১২টি ম্যাচ ফল নিষ্পত্তি হয়নি।


পাকিস্তান


পাকিস্তান এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম হটফেবারিট টিম। পাকিস্তান ইতিমধ্যে ১৭৭টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ১০৬টি ম্যাচে জয় ও ৬৩টিতে পরাজিত হয়েছে। এছাড়া ৮টি ম্যাচে ফল আসেনি।


নিউজিল্যান্ড


নিউজিল্যান্ড বরাবরের মত এবারও টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম হটফেবারিট টিম। এই দলটি ইতিমধ্যে ১৫০টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৭৩ জয় ও ৬৫ম্যাচে পরাজয় রয়েছে।


আফগানিস্তান


আফগানিস্তান এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে ফেবারিট হিসেবে খেলবে কারণ তাদের আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি রেকর্ড খুবই ভালো। এই দলটি ইতিমধ্যে ৮৪টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৫৮ম্যাচে জয় ও ২৫টি ম্যাচে হার রয়েছে। এছাড়া ১টি ম্যাচে ফল আসেনি।



শ্রীলঙ্কা


শ্রীলঙ্কা এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের উইকেট বিবেচনায় অন্যতম ফেবারিট টিম হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছে।এ দলটি ইতিমধ্যে ১৪০টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ৬২টি ম্যাচে জয় পেয়েছে ও ৭৪টি ম্যাচে পরাজয় বরণ করেছে। এছাড়া ৪টি ম্যাচে ফল নিষ্পত্তি হয়নি।


আয়ারল্যান্ড


আয়ারল্যান্ড বর্তমান আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে শক্তিশালী টিম হিসেবে স্বীকৃত।আইরিশরা ইতিমধ্যে ১০৯টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলে ৪৫টি ম্যাচে জয় ও ৫৫টি ম্যাচে হেরেছে। এছাড়া ৯টি ম্যাচে ফল নিষ্পত্তি হয়নি।


স্কটল্যান্ড



স্কটল্যান্ড এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিট টিম। স্কটল্যান্ড ইতিমধ্যে ৭০টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ৩১টি ম্যাচে জয় পেয়েছে এবং ৩৫টিতে পরাজিত হয়েছে। এছাড়া ৪টি ম্যাচে ফল আসেনি।


ওমান


ওমান এবারের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম আয়োজক দেশ। ওমান ইতিমধ্যে ৩৬টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ১৬জয় ও ১৯টি ম্যাচে পরাজিত হয়েছে। এছাড়া ১টি ম্যাচে ফল আসেনি।


নেদারল্যান্ড



নেদারল্যান্ড ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে ৮০টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে ৪১ ম্যাচে জয় ও ৩৪টিতে পরাজয় রয়েছে। এছাড়া ৫টি ম্যাচে ফল আসেনি।



পাপুয়া নিউগিনি


পাপুয়া নিউগিনি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে তুলনামূলকভাবে নবীন দল।এই দলটি ইতিমধ্যে ২৮টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে যেখানে তাঁরা ১৭টি ম্যাচে জয় পেয়েছে এবং ১০টিতে হেরেছে। এছাড়া ১টি ম্যাচে ফল আসেনি।


নামিবিয়া


নাবিবিয়াও আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে তুলনামূলকভাবে নবীন দল।এই দলটি ইতিমধ্যে ২২টি আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ম্যাচ খেলে ১৮টি ম্যাচে জয় পেয়েছে এবং ৪টি ম্যাচে পরাজিত হয়েছে।