WHAT'S NEW?
Loading...

বিশ ওভারের ক্রিকেট থেকেও মালিঙ্গার অবসর

                                                                   


প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ শ্রীলঙ্কা তথা বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বিস্ময়কর পেসার লাসিথ মালিঙ্গা এবার টিটুয়েন্টি ক্রিকেট থেকেও অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন। টেস্ট, ওয়ানডে ও ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট থেকে আগেই বিদায় নিয়েছিলেন এই কিংবদন্তি পেসার। উল্লেখ্য আসন্ন টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপের লংকান স্কোয়াডে তাকে রাখা হয়নি।যদিও আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টি ক্রিকেটে এই মুহূর্তে সর্বাধিক উইকেটের মালিক এই তারকা পেসার শ্রীলঙ্কার ২০১৪ সালের টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক ছিলেন। এছাড়া টিটুয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে কার্যকর পেসারদের মধ্যে মালিঙ্গার নামটি সবার আগে উচ্চারিত হয়। সেইসাথে ডেথওভারে মালিঙ্গা এক তুলনাহীন বোলার হিসেবে  স্বীকৃত। লাসিথ মালিঙ্গার ইউনিক গুণ ও ক্যারিয়ারচিএ এখানে তুলে ধরছি।



মালিঙ্গার ইউনিক গুণগুলো


শুধু লংকান ক্রিকেটে নয় বরং বৈশ্বিক ক্রিকেটেই লাসিথ মালিঙ্গা এক অদ্ভুত ধাঁধার নাম।যদিও শুরুতে এই বোলার শুধুই এক পেসার ছিলেন তবে যত সময় গড়িয়েছে ততই মালিঙ্গার বোলিংয়ের ধার বেড়েছে। এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো ওয়ানডে ও টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের ডেথ ওভার বোলিংয়ে মালিঙ্গা নিজেকে এক অনন্য পেসার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। তাছাড়া নিখুঁত ও কার্যকর ইয়র্কারের জন্য ক্রিকেটের রেকর্ড বইয়ে বহুকাল তাঁর নামটি উচ্চারিত হবে। মালিঙ্গার কিছু ইউনিক গুণ নিয়ে এখানে আলোচনা করছি।


নিখুঁত পেস ও ইয়র্কার


স্বল্পদৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে পেসারদের বহুমাত্রিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়। এবং এক্ষেত্রে একজন পেস বোলারের বড় অস্ত্র হলো নিখুঁত পেস ও ভ্যারিয়েশন।যদিও এক্ষেত্রে প্রায় প্রত্যেক বোলারের শক্তির জায়গা ভিন্ন। কিন্তু নিখুঁত পেস ও কার্যকর ইয়র্কারের প্রসঙ্গ এলে লাসিথ মালিঙ্গা ক্রিকেটের এক অনন্য পেসার হিসেবে স্বীকৃত। এবং ধারণা করা হয় হয়তো বহুকাল এরকম পেসার ক্রিকেটে পাওয়া যাবে না।


বিচিত্র বোলিং স্টাইল


মালিঙ্গার ইউনিক গুণগুলোর একটি হচ্ছে তাঁর বিচিত্র বোলিং স্টাইল।সচরাচর এরকম বিচিত্র বোলিং স্টাইলের বোলারদের বহুমাত্রিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো অ্যাকুরেসি। লাসিথ মালিঙ্গা বিচিত্র স্টাইলের বোলিংয়ের পাশাপাশি নিজেকে একজন সেরা পেসার হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সমর্থ হয়েছেন যা কিছুটা হলেও বিস্ময়কর।


ডেথ ওভারে অবিশ্বাস্য সফলতা


ডেথ ওভারের বোলিং খুবই চ্যালেঞ্জিং এক কাজ অথচ এই কঠিন কাজটি মালিঙ্গা অসংখ্যবার সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন । শুধু ডেথ ওভারের বোলিং দিয়ে লাসিথ মালিঙ্গা শ্রীলঙ্কা  ও ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটে বহু ম্যাচের গতিপথ পাল্টে দিয়েছেন। এবং ডেথ ওভারের সাফল্য বিবেচনায় লাসিথ মালিঙ্গার মত পেসার ক্রিকেটে খুবই কম রয়েছেন।



লাসিথ মালিঙ্গার ক্যারিয়ারচিএ


লাসিথ মালিঙ্গা ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিত্ব করেছেন।তবে এই পেসার টেস্ট ক্রিকেটের তুলনায় স্বল্প দৈর্ঘ্যের ক্রিকেট বেশি খেলেছেন এবং স্বল্প দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে তাঁর সাফল্যও ব্যাপক। এছাড়া আইপিএলেও মালিঙ্গার সফলতার রেকর্ড রয়েছে।



টেস্ট ক্যারিয়ার


লাসিথ মালিঙ্গা টেস্ট ক্রিকেটে ৩০টি ম্যাচ খেলেছেন যেখানে ব্যাট হাতে তাঁর একটি ফিফটি রয়েছে। টেস্ট ক্রিকেটে বল হাতে মোট ৩০ ম্যাচে ১০১টি উইকেট নিয়েছেন এই তারকা পেসার। এছাড়া তিনি টেষ্টে ৩বার ম্যাচে ৫উইকেট নিয়েছেন।



ওয়ানডে ক্যারিয়ার


লাসিথ মালিঙ্গা ওয়ানডে ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কা তথা বিশ্বের অন্যতম সেরা এক পেসার। মালিঙ্গা মোট ২২৬টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন যেখানে ব্যাট হাতে তাঁর ১টি ফিফটি রয়েছে। এছাড়া এই তারকা পেসার ওয়ানডে ক্রিকেটে বল হাতে মোট ৩৩৮টি উইকেট নিয়েছেন। ওয়ানডে ক্রিকেটে মালিঙ্গা মোট ৮বার ম্যাচে ৫উইকেট নিয়েছেন ।


টিটুয়েন্টি ক্যারিয়ার


টিটুয়েন্টি বোলিংয়ে মালিঙ্গা নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।এই মুহূর্তে এই বোলার  আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক । মালিঙ্গা তাঁর টিটুয়েন্টি ক্যারিয়ারে ৮৩ ম্যাচ খেলে মোট ১০৭টি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া আন্তর্জাতিক টিটুয়েন্টিতে এই বোলার ২বার ম্যাচে ৫উইকেট নিয়েছেন।



আইপিএল রেকর্ড


ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও(আইপিএল) লাসিথ মালিঙ্গার দারুণ সফলতার রেকর্ড রয়েছে। আইপিএলে মালিঙ্গা মোট ১২২টি ম্যাচ খেলেছেন যেখানে তাঁর উইকেট সংখ্যা ১৭০। সেইসাথে আইপিএলে ১বার ম্যাচে ৫উইকেট নিয়েছেন এই তারকা পেসার।