WHAT'S NEW?
Loading...

সিপিএলের সর্বোচ্চ টিম টোটাল

                                                                   


প্রিয় ক্রিকেট ডটকমঃ ফ্রাঞ্চাইজি টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের  বড় আসরগুলোর অন্যতম একটি হচ্ছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল)।সব ধরণের ক্রিকেটীয় উওেজনা উপভোগ করতে চাইলে আপনাকে সিপিএল দেখতেই হবে।গেইল, পোলার্ডদের দেশের এই ক্রিকেটযজ্ঞ (২০২১) ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে।চলছে সিপিএলের ২০২১ আসরের মাঠের লড়াই। এখানে সিপিএলের সর্বোচ্চ টিম টোটালগুলোর চিএ তুলে ধরছি।



সিপিএলের চিরায়ত চরিত্র


সব ফ্রাঞ্চাইজি টিটুয়েন্টি লিগের আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এক্ষেত্রে আইপিএলে যে জামজমকপূর্ণ আয়োজন ও উওেজনাপূর্ণ ক্রিকেট হয় সেটি সিপিএল কিংবা অন্যকোন ফ্রাঞ্চাইজি টিটুয়েন্টি লিগে দেখা যায় না। আবার গতিশীল ও স্মার্ট ক্রিকেটের জন্য বিগব্যাশের তুলনা হয় না। আবার আয়োজন কম কিন্তু দর্শকদের তুমুল আগ্ৰহের দিক বিবেচনায় বিপিএলের মত তুলনামূলক কম বাজেটের টিটুয়েন্টি লিগের সফলতা লাভের উদাহরণ  আমাদের হাতের কাছে রয়েছে। সিপিএলের কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য এখানে তুলে ধরছি।


ধুন্ধুমার ব্যাটিং 


ফ্রাঞ্চাইজি টিটুয়েন্টি লিগগুলোর মধ্যে সিপিএলের অবস্থান বেশ উপরের দিকে রয়েছে।আর সিপিএলের জনপ্রিয়তার বড় এক নিয়ামক এর ধুন্ধুমার চার-ছক্কার মহোৎসব।উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা স্বাভাবিকভাবেই বিগহিটার হিসেবে পরিচিত। এছাড়া টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের অবদান রয়েছে।আর নিজেদের দেশের এই টিটুয়েন্টি লিগে উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা যেমন দারুণ  ব্যাটিং করেন তেমনি অন্যান্য বিদেশি প্লেয়াররাও সিপিএলে বিগহিট নির্ভর ক্রিকেট খেলে থাকেন।এর ফলে বিশেষত উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের ধুন্ধুমার ব্যাটিং দেখার জন্য সিপিএল এক চমৎকার মঞ্চ।


দুর্দান্ত সব পেসবোলার


সিপিএলে যে দৃশ্যগুলো সবচেয়ে বেশি আনন্দ দেয় তার মধ্যে একটি হচ্ছে এই ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট উৎসবে দারুণ সব পেসবোলারকে দেখা যায়।একসময় উইন্ডিজ ক্রিকেটের অন্যতম প্রাইড ছিল তাদের বিশ্বসেরা সব পেস বোলার।যদিও এখন তেমনটা নেই তবু সিপিএলে সবসময় দুর্দান্ত  কিছু উইন্ডিজ পেসারকে দেখা যায়।



অসাধারণ ফিল্ডিং


সিপিএলে অসাধারণ সব ফিল্ডিংয়ের দেখা পাওয়া যায় যা এর উওেজনাকে বাড়িয়ে দেয়।বিশেষত উইন্ডিজ ক্রিকেটে অসাধারণ সব ফিল্ডার রয়েছে যা সিপিএল দেখলে সহজে বোঝা যায়। এছাড়া সিপিএলের ফিল্ডিংয়ে হাফ চান্সকে ফুলচান্সে পরিণত করার দৃশ্য এক চমৎকার বৈশিষ্ট্য যা সবাইকে আনন্দ দেয়।



গেমপ্লেন বোঝা মুশকিল


যেকোন ধরণের ক্রিকেটে গেমপ্লেন একটি বিশেষ বিষয়। এবং গেমপ্ল্যান টিটুয়েন্টি ক্রিকেটকে আরো বেশি উওেজনাপূর্ণ করে তুলে।তবে সিপিএলে কখনো কখনো দেখবেন এক টিম হয়তো  হাইস্কোর করেছে অথচ অন্যটিম এর ধারেকাছে যেতে পারছেনা এবং বিশাল ব্যবধানে হেরে যাচ্ছে। সিপিএলে এভাবে এলোমেলো ব্যাটিং বেশি দেখা যায় এবং তখন পরাজিত টিমের গেমপ্ল্যান বোঝা মুশকিল হয়ে পড়ে।এর ফলে সিপিএলে গেমপ্ল্যান বোঝা অনেক ক্ষেত্রে কঠিন হয়ে উঠে।


বিচিত্র ভঙ্গির উদযাপন 


ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্লেয়াররা দারুণ এন্টারটেইনার হিসেবে স্বীকৃত। হাফসেঞ্চুরি, সেঞ্চুরি কিংবা উইকেট পেলে বিচিত্র ভঙ্গিতে উদযাপন উইন্ডিজ ক্রিকেটারদের বিশেষ বৈশিষ্ট্য। এবং সিপিএলে এ বৈশিষ্ট্য আরো চমৎকারভাবে ফুটে উঠে।এর ফলে সিপিএলের মাঠের লড়াই নতুন মাএা পেয়ে থাকে।এমনকি টিভির দর্শকরাও উইন্ডিজ ক্রিকেটারদের বিচিত্র উদযাপন ভঙ্গি উপভোগ করেন।



সিপিএলের সর্বোচ্চ টিম টোটাল



সিপিএলের ভয়ডরহীন ক্রিকেটের জন্য এখানে হাই ইনিংস টোটালের সংখ্যাও অনেক। সিপিএলের সর্বোচ্চ রানের কিছু টিম টোটালের চিএ এখানে তুলে ধরছি।


ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের ২৬৭/২



সিপিএলের ইতিহাসে আজ অবধি সর্বোচ্চ ইনিংস টোটাল হচ্ছে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের ২ উইকেটে ২৬৭ রান (২০১৯ সিপিএল)।সেই ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল জামাইকা তালাওয়াশ।



জামাইকা তালাওয়াশের ২৫৫/৫



ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে আজ অবধি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস টোটালের রূপকার জামাইকা তালাওয়াশ ২৫৫/৫। এবারের সিপিএলের দ্বিতীয় দিনের ম্যাচে(২৭ আগষ্ট,২১) তালাওয়াশের ব্যাটসম্যানরা প্রতিপক্ষ সেন্ট লুসিয়া কিংসের বোলারদের উপর রীতিমতো চার-ছয়ের ঝড় বইয়ে দিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৫৫ রানের বিশাল টোটাল গড়ে তুলেন।




সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাটট্রিয়র্সের ২৪২/৬



সিপিএলের তৃতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস টোটাল সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাটট্রিয়র্সের।২০১৯ সালের সিপিএলে সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাটট্রিয়র্স জামাইকা তালাওয়াশের বিপক্ষে এক ম্যাচে ১৮.৫ ওভারে ২৪২ রানের বিশাল ইনিংস গড়ে তুলে।




জামাইকা তালাওয়াশের ২৪১/৪



ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের সেরা টিম টোটালের অনেকগুলো জামাইকা তালাওয়াশের নামের পাশে রয়েছে। তেমনি ২০১৯ সিপিএলের এক ম্যাচে জামাইকা তালাওয়াশ সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাটট্রিয়র্সের বিপক্ষে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২৪১ রানের বিশাল স্কোর গড়ে তুলে।