WHAT'S NEW?
Loading...

আমি বিশ্বাস করি জীবন এসব কিছুর চাইতে বড় : বিরাট কোহলি

                                                               


বিরাট কোহলি ক্রিকেটের এক বিস্ময় হিসেবে খ্যাত ।ব্যাট হাতে সেঞ্চুরির পর সেঞ্চুরি দিয়ে ক্রিকেট পাতায় প্রতিনিয়ত ওলটপালট করে চলেছেন। ভারতের এই ব্যাটিং  লিজেন্ড ইতিমধ্যে ক্রিকেটের সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন।  উইজডেন থেকে বিরাট কোহলির একটি সাক্ষাৎকার এখানে তুলে ধরছি।ভাষান্তর: প্রভাকর চৌধুরী।


উইজডেন : একুশ শতকের ক্রিকেটের রূপান্তর, পরিবর্তন,ব্যস্ততার মধ্যেও জীবনকে কিভাবে উপভোগ করেন ?


কোহলি : বিরাট কোহলির নেতৃত্ব সম্পর্কে বহু মিথ্যা অপপ্রচার,বহু বিব্রতকর ইমেইল ইত্যাদির পরও বিরাট কোহলি তাঁর দায়িত্বে সফল।প্রায় দশ বছর হলো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছি । বিশ্বের বিখ্যাত ১০০ মানুষের তালিকায় বিরাটের নাম আছে। ফোর্বসের তালিকায় একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে সবচেয়ে বেশি আয়ের রেকর্ড কিন্তু বিরাটের।


উইজডেন : আপনিতো শুরু থেকেই স্ট্রোকমেকার হিসেবে পরিচিত । তাছাড়া গুড হিটার হিসেবে আপনার খ্যাতি রয়েছে।এতসবের মধ্যে কিভাবে দায়িত্ব পালন করেন ?


কোহলি : আমি এবং আমার স্ত্রী শুরু থেকেই জানি মানুষের প্রতি আমাদের দায়িত্ব কেমন।এটার অর্থ শুধু মানুষকে উপদেশ দেয়া নয় আমাদের দায়িত্ব মানুষকে সঠিক পথে চালিত করা। এক্ষেত্রে কে কি বলল তা আমরা ভাবি না। আমাদের অর্জিত দায়িত্ব এটি। শুধু নিজের অর্জনই  আমার কাজ নয় বরং ক্রিকেটের অভিজ্ঞতা থেকে তরুণ ক্রিকেটারদের সঠিক দিকনির্দেশনা দেয়া এখন মূল কাজ।এ পর্যায়ে আর শুধু গুড হিটই একমাত্র কাজ নয়।


উইজডেন : আপনি তিন ধরণের ক্রিকেটে ইন্ডিয়াকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আবার নিয়মিত পারফর্ম করছেন। কিভাবে সম্ভব হচ্ছে এসব ?

কোহলি : দেখুন আমি যে কাজ উপভোগ করি সেটি কত লম্বা বা কত জটিল তা মুখ্য নয়।আমি মনে করি না দৈনন্দিন কাজ কারো খেলায় প্রভাব ফেলতে পারে।২৪ ঘন্টার দিনে সব কাজই চালিয়ে যাওয়া সম্ভব।আমি সব কাজের আগে খেলাকে গুরুত্ব দেই।এর ভেতর দিয়ে ব্যবসায় সময় দেই।আমি এসব কাজ করি একটি নিয়ম মেনে।আর সবচেয়ে বড় কথা হলো আমি কাজ করতে পছন্দ করি।


উইজডেন : ক্রিকেটের বাইরে আর কিভাবে জীবন উপভোগ করেন ?

কোহলি : ক্রিকেটের বাইরে আনন্দ হয় যখন দেশের বাইরে যাই।তখন বেশ স্বাধীনভাবে স্বাভাবিক ঘোরাফেরা করতে ভালো লাগে।আমরা পোষা প্রাণী খুব পছন্দ করি। বিশেষত কুকুর খুব প্রিয় প্রাণী।

উইজডেন : ক্রিকেটের শুরুর দিকের কোন গুরুর কথা মনে পড়ে যার অবদান আপনার জীবনে  ব্যাপক ?

কোহলি : আমার প্রাথমিক জীবনের ক্রিকেট কোচ রাজকুমার শর্মার কথা বলব। তিনি আমাকে সঠিকভাবে চিনেছিলেন এবং সেভাবে আমাকে তৈরি হতে সাহস দিয়েছিলেন।


উইজডেন : কোন কোন মানুষের পরামর্শ শুনতে পছন্দ করেন এবং কাদের পরামর্শ আপনার জীবনে কাজে লেগেছে ?

কোহলি : ক্রিকেট সম্পর্কে সবচেয়ে ভালো পরামর্শক গ্যারি কারষ্টেন এবং ডানকান ফ্লেচার।এ দুজনের কাছে ক্রিকেটের কথা শুনতে খুব ভালো লাগে।


উইজডেন : বিগত সময়ে ভারতীয় দলে যেসব অধিনায়কের অধীনে খেলেছেন তাদের কাছ থেকে কি শিখতে পেরেছেন ?


কোহলি : আমি এমএস ধোনিকে ভালো করে দেখেছি। এমনকি স্লিপে তাঁর পাশে দাঁড়িয়ে থেকেও অনেক কিছু শিখেছি।


উইজডেন : নিজের অধিনায়কত্বের মূল্যায়ন করবেন কিভাবে ?

কোহলি : অধিনায়ক হিসেবে আমি ইতিবাচক কিছু ভাবতে পছন্দ করি।আমি হারি বা জিতি পিছনে যাইনা সবসময় আগামীর চিন্তা করি।আমি সবসময় প্লেয়ারদের স্বাধীনভাবে খেলতে দেই।


উইজডেন :চারদিনের টেস্টকে কি আপনি ক্ষতিকর মনে করেন ?

কোহলি : অবশ্যই আমি এটি চাই না।


উইজডেন : আপনি ক্যারিয়ারে পাকিস্তানের বিপক্ষে কোন টেস্ট খেলেননি ভবিষ্যতে এমন কিছু ঘটার সম্ভাবনা আছে ?

কোহলি : পাকিস্তানের বেশ শক্তিশালী বোলিং আক্রমণ রয়েছে এবং ব্যাটসম্যান হিসেবে আমি অবশ্যই তাদের বিপক্ষে খেলতে চাই। তাদের বিপক্ষে হয়তো খেলার সুযোগ আসবে কিন্তু এ নিয়ে আসলে আমার বলার তেমন কিছু নেই। সবকিছুই সম্ভব ।আজ থেকে দশ বছর আগে আমি এ পর্যায়ে আসব ভাবিনি।


উইজডেন : খেলা ছাড়ার পর কি আইসিসি বা বিসিসিআই এর সাথে কাজ করতে চান ?

কোহলি : আমার মধ্যে এরকম চিন্তা আসলে নেই। পরিবার,বাচ্চা এদেরকে সময় দেয়াই আমার কাছে মুখ্য।জীবন আমার কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এবং আমি মনে করি এক ক্রিকেটের পরিচয়ই মুখ্য নয়।আমার কাছে জীবন এসব কিছুর চাইতে বড়।