WHAT'S NEW?
Loading...

শীতের কিছু আদর্শ খাবার

                                                                 


প্রিয় ক্রিকেট ডটকম : শীতে অন্য অনেককিছুর সাথে খাবারদাবার  নিয়ে সচেতন থাকলে সুন্দরভাবে এ সময়টি কাটানো যায়।আর শীতের খাবারদাবার সম্পর্কে সামান্য সচেতন হলে শীত হয়ে উঠবে আরো আনন্দদায়ক। এছাড়া এই ঋতুতে বিশেষ কিছু খাবার নিয়মিত খেলে শরীর সুস্থ থাকবে এবং বিভিন্ন মৌসুমী রোগবালাই সহজে শরীরে প্রবেশ করতে পারবে না। তাই পুষ্টিবিদেরা শীতের সুস্থতা ও সতেজতার জন্য কিছু খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন। শীতে সুস্থতার জন্য চাই পর্যাপ্ত ঘুম ও মৌসুমী ফল, শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস। চলুন শীতের কিছু আদর্শ খাবারের খবর জেনে নিই (সূত্র:ঢাকাট্রিবিউন)।

পানি পান করুন

শীতে অনেকেই ঠান্ডার জন্য পানি পান করতে চান না। শীতের তীব্রতা বাড়ার সাথে সাথে অনেকের মধ্যে পানি পানের প্রবণতা কমে যায়।তবে পুষ্টিবিদদের মতে এটি মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। বরং শীতে শরীর ও ত্বককে সুস্থ রাখার জন্য প্রচুর পানি খেতে হবে।যারা ঠান্ডা পানি খেতে পারেন না তাদের উচিত হালকা ও কুসুম গরম পানি পান করা । শীতে ত্বক ও চুলের জন্য পানি পান খুব উপকারী। শীতে ফলের রস,ডাবের পানি ইত্যাদি খুব উপকারী।


সবজির স্যুপ খেতে পারেন

শীতে প্রচুর মৌসুমী সবজি পাওয়া যায়।আর সবজির স্যুপ এ সময়ের এক আদর্শ খাবার। পুষ্টিবিদেরা শীতে সুস্থ থাকার জন্য সবজির স্যুপ খাওয়ার পরামর্শ দেন।আর শীতে সবজির আসল স্বাদ পাওয়া যায়। শীতের বিকেলে সবজির গরম স্যুপ আপনাকে দারুণ প্রশান্তি দেবে। এছাড়া শরীর থেকে ঠান্ডার ভাব সহজে দূর হবে।


মূলজাতীয় সবজি উপকারী

পুষ্টিবিদদের মতে শীতে সতেজ থাকার জন্য মূলজাতীয় সবজি এক দারুণ খাবার।মিষ্টিআলু,গাজর,শালগম ইত্যাদি মূলজাতীয় সবজি শীতে বেশি বেশি খান আর শীতকে সুন্দরভাবে উপভোগ করুন।মূলজাতীয় সবজি রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। এছাড়া রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমাতে দারুণ কার্যকর এসব সবজি। শরীরের উষ্ণতা বাড়িয়ে  মূলজাতীয় সবজি শীতে দেহ ও মনকে সতেজ রাখে।


কমলা খান

শীতকালে বাজারে প্রচুর কমলা পাওয়া যায়।আর এই ফলটিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। শীতের সর্দিকাশি থেকে শরীরকে সুস্থ রাখতে পুষ্টিবিদেরা তাই নিয়মিত কমলা খেতে বলেন।কমলা শীতে আমাদের ত্বককে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।


ডিম খান

ডিমে প্রচুর পুষ্টিগুণ রয়েছে। শীতে শরীরকে সতেজ রাখতে তাই নিয়মিত ডিম খেতে পারেন।ডিমে রয়েছে প্রচুর আয়রন ও ক্যালসিয়াম । ডিম শুধু শীতে নয় সারাবছর শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখতে সহায়তা করে।


আদা খুব উপকারী

শীতের এক আদর্শ খাবার আদা। শীতের সকালে প্রতিদিন আদার চা খেতে পারেন।এ সময়ে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে আদা খুব কার্যকর।আদা শীতকালে শরীরের রক্তসঞ্চালন বাড়িয়ে দেয়। এছাড়া বিভিন্ন ধরণের ফ্লু প্রতিরোধে আদা কার্যকর। এই সময়ে প্রতিদিনের রান্নায় আদা রাখুন।


রসুন উপকারী

শীত আসলে জ্বর ও ঠান্ডাজাতীয় রোগব্যধির প্রকোপ বেড়ে যায়।আর শীতের এসব রোগব্যধি থেকে কিছুটা স্বস্তি পেতে নিয়মিত রসুন খেতে পারেন।আর রসুন কাঁচা খাওয়া বেশি উপকারী।তবে যারা কাঁচা রসুন খেতে পারেন না তাদের জন্য রান্নায় রসুন ব্যবহার করা ভালো।

শীতে পালংশাক খান

শীতের এক আদর্শ খাবার পালংশাক। পালংশাক শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এমনকি পালংশাকে ক্যান্সারপ্রতিরোধী গুণ রয়েছে। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে শীতে ওজন বেড়ে যায় আর এক্ষেত্রে এসময়ে পালংশাক খাওয়া খুব উপকারী।


টকফল শীতে উপকারী

শীতে ত্বক ও শরীরের সতেজতা বাড়ানোর জন্য টকফল খুব উপকারী।কমলা,বরই ইত্যাদি টকফল এই সময়ে বেশ সহজলভ্য।শীতে দেহ ও মনের সতেজতার জন্য নিয়মিত টকফল খেতে পারেন।