WHAT'S NEW?
Loading...

টেকনোলজিও শতভাগ পারফেক্ট নয় :সাইমন টাফেল

                                                   

       

সাইমন টাফেল বিশ্বের অন্যতম নিখুঁত আম্পায়ার হিসেবে স্বীকৃত।তাঁর প্রায় ৯৬.৫ শতাংশ সিদ্ধান্ত সঠিক বলে প্রমাণিত হয়েছে।আর এটি টাফেলকে ক্রিকেট আম্পায়ারিংয়ে অনন্য করে তুলেছে।টানা পাঁচবার আইসিসির বর্ষসেরা আম্পায়ার নির্বাচিত হয়েছেন।এখানে ক্রিকবাজ থেকে সাইমন টাফেলের একটি সাক্ষাৎকার তুলে ধরছি।ভাষান্তর:প্রভাকর চৌধুরী।

ক্রিকবাজ:আপনি ক্রিকেটে টেকনোলজির ব্যবহারকে কিভাবে দেখেন?

টাফেল:দেখুন টেকনোলজি এখানে মূলকাজ করছে না বরং মাঠের আম্পায়ারকে সহায়তা করছে।তবে পুরোপুরি টেকনোলজির উপর নির্ভর করা যাবে না।কারণ টেকনোলজিও শতভাগ পারফেক্ট নয় এবং এটিও সবসময় সমানভাবে সঠিক সিদ্ধান্ত দিতে পারেনা।

ক্রিকবাজ:আপনি কি মনে করেন ক্রিকেট অধিক মাএায় টেকনোলজির উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে?

টাফেল:ক্রিকেটে টেকনোলজি কোন কাজে লাগছে সেটি মূল বিবেচ্য কারণ এখানে নিয়ন্ত্রক ও চালকদের ভূমিকা খুব গুরুত্বপূর্ণ।যারা আয়োজক তারাই মূলত টিভি ও টেকনোলজির মূল পৃষ্টপোষক।আয়োজকরা যত বেশি সহায়তা করবে টেকনোলজির কাজ তত ভালো হবে।তবে আশার যে আইসিসি টেকনোলজির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিতে কাজ করছে।

ক্রিকবাজ:টেকনোলজি আসলে কোন কোন ক্ষেএে বেশি সহায়ক?

টাফেল:দুটি সিদ্ধান্তের ক্ষেএে টেকনোলজি খুব বেশি প্রয়োজনীয় আর সেগুলো হল লেগসাইডে কটবিহাইন্ড ও ব্যাটপ্যাড আপিল।এলবিডাব্লিউর সিদ্ধান্ত মাঠের আম্পায়ারই সবচেয়ে ভালো দিতে পারেন কারণ টিভি আম্পায়ার ব্যাটসম্যানের পায়ের পজিশন বুঝতে পারেননা।

ক্রিকবাজ:এখন প্রায় সবক্ষেএে টিভি আম্পায়ারের ডাক পড়ছে বিষয়টি কিভাবে দেখছেন ?

টাফেল:এটি খুব বিব্রতকর প্রবণতা।টেকনোলজির ব্যবহার মূলত আম্পায়ারের উপর নির্ভর করে।তবে এক্ষেএে মাঠের আম্পায়ারদের দায়িত্ব অনেক বেশি। টেকনোলজির অতিরিক্ত ব্যবহার অবশ্যই ভালো প্রবণতা নয়।

 ক্রিকবাজ:মাঠের ঘাস ও ফিল্ডারের হাতের মাঝামাঝি থাকা ক্যাচ কি ' ক্লিনক্যাচ' হতে পারে?

টাফেল:এটি ক্রিকেটের আইনে পরিস্কার বলা আছে যদি বল ফিল্ডারের হাতেই জমা হয় এবং বলের পূর্ণনিয়ন্ত্রণ তার হাতেই থাকে তবে ব্যাটসম্যান আউট।

ক্রিকবাজ:মাঠে টাইম ম্যানেজমেন্ট কিভাবে আরো উন্নত করা যায়?

টাফেল:আমি এক্ষেএে একজন বিশেষজ্ঞ থার্ড আম্পায়ারের অভাব বোধ করি।

ক্রিকবাজ:এলবিডাব্লিউ আউটের ক্ষেএে মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই অধিকাংশক্ষেএে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি কিভাবে দেখছেন?

টাফেল:এখানে মাঠের আম্পায়ারের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত গুরুত্বপূর্ণ।আমি অভিজ্ঞতায় দেখেছি অধিকাংশক্ষেএে এলবিডাব্লিউর প্রাথমিক সিদ্ধান্তই সঠিক বলে বিবেচিত হয়।

ক্রিকবাজ:মাঠের আম্পায়াররা নোবল দেখছেন না বরং টিভি আম্পায়ার এ কাজটি করছেন।বিষয়টি কিভাবে দেখছেন?

টাফেল:না আমি মনে করি ভালো আম্পায়ারা সবদিকে সচেতন থাকেন।তবে মাঠের পরিবেশ এখন আগের চেয়ে আরো জটিল হয়ে গেছে এটিও বুঝতে হবে।

ক্রিকবাজ:ক্রিকেট আম্পায়ারিংকে আরো সার্থক করতে কি করা প্রয়োজন?

টাফেল:আমি মনে করি আম্পায়ারদের  ট্রেনিং ও কোচিংয়ের জন্য ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রকদের আরো বেশি ইনভেষ্ট করা দরকার।




দর্শকবিহীন আইপিএল কেমন চলছে

                                                               

                                                     
 
বহু জল্পনাকল্পনার পর শুরু হয়েছে এবারের আইপিএলের মূল লড়াই অর্থাৎ মাঠের লড়াই।যদিও দর্শকবিহীন ক্রিকেট কিছুটা রংহীন।তবু মাঠের আইপিএল জমে উঠছে বলা যায়।আসুন এবারের আইপিএলের শুরু কেমন হল দেখে নেই।

পুরনোদের দাপট বেশি


এবারের আইপিএলে পুরনোদের সাফল্য এখনো বেশি।ব্যাটিং বোলিং দুইদিকেই পুরনোদের সাফল্য বেশি চোখে পড়ছে।তুলনামূলকভাবে নতুনরা ধৈর্য হারিয়ে উইকেট গিফট করে আসছেন।এক্ষেএে ডুপ্লেসিস,স্টিভ স্মিথ,রোহিত শর্মার মত পুরনোরা ধৈর্য ধরে ধীরে ধীরে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসছেন।পেস বোলারদের মধ্যে পুরনোরাই এখনো বেশি সফলতা দেখাচ্ছেন।সামি,রাবাদা,বুমরা,চাহাল,বোল্টের মত পুরনো ও পরীক্ষিতরাই এখনো সফলতার দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন।তরুণ পেসারদের মধ্যে নবদ্বীপ সাইনির বোলিং ভালো হচ্ছে। তরুণ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে আগরওয়াল,স্যামসন,মনিষ পান্ডে ভালো করছেন।

বলতেই হচ্ছে তরুণ স্পিনারদের কথা


এবারের আইপিএলে তরুণ স্পিনারদের সাফল্য বেশ চোখে পড়ার মত।বিশেষত বেশকজন লেগস্পিনার ম্যাচের গতিপথ দারুণভাবে পাল্টে দিচ্ছেন।উইকেট ও ব্যাটসম্যানের দুর্বলতা বুঝে দারুণ বল করছেন বেশকজন উঠতি লেগস্পিনার।

শুরুতে তরুণদের উপর নির্ভর করছে দলগুলো


এ আইপিএলে শুরুর দিকে সবদলই তরুণদের উপর বেশি নির্ভর করছে।তাই প্রায় সব দল মাঠে তারুণ্যনির্ভর স্কোয়াড  দিচ্ছে।এবং এক্ষেএে তরুণ বোলাররা বেশি সাফল্য দেখাচ্ছেন।তরুণ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে আগরওয়াল,স্যামসন,মনিষ পান্ডে দারুণ করছেন।

আনফিট বয়স্কদের ব্যর্থতা


এই আইপিএলে বয়স্কদের মধ্যে ফিটনেসের অভাব লক্ষণীয় ।ওয়াটসন,ধোনি,স্টেইনের মত বয়স্কদের ফিটনেসের ঘাটতি দেখা যাচ্ছে।যদিও পুরনোদের মধ্যে রাসেল,ডুপ্লেসিস,ব্রাভোদের পারফরমেন্স ভালো হচ্ছে।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

চলে গেলেন জনপ্রিয় ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার ডিন জোন্স

                                                              


অষ্ট্রেলিয়ার সাবেক গ্ৰেট ব্যাটসম্যান ও জনপ্রিয় ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার  ডিন জোন্স মৃত্যুবরণ করেছেন।গতকাল ভারতের মুম্বাইয়ে হ্নদরোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাবেক এই অজি গ্ৰেট ।তিনি স্টার ইন্ডিয়ার হয়ে আইপিএলে ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন।

জোন্স ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৪ পর্যন্ত অষ্ট্রেলিয়ার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন।জোন্স মোট ৫২টি টেষ্ট ও ১৬৪টি অডিআই খেলেছেন।টেষ্টে জোন্স মোট ৩,৬৩১ রান করেন।অডিআই ক্রিকেটে জোন্স মোট ৬হাজার রান করেন।ডিন জোন্সের ১১টি টেষ্ট সেঞ্চুরি রয়েছে।এছাড়া অডিআই ক্রিকেটে জোন্সের ৭টি সেঞ্চুরি আছে।

ক্রিকেট থেকে অবসরের পর জোন্স কোচিং ও ধারাভাষ্যে জড়িত ছিলেন।ডিন জোন্স অষ্ট্রেলিয়ার ৮৭বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ছিলেন।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

জম্মু-কাশ্মিরে ক্রিকেট একাডেমি করছেন সুরেশ রায়না

 ইন্ডিয়ার  অলরাউন্ডার সুরেশ রায়না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন বেশদিন হয়ে গেছে।তবে বিভিন্ন টিটুয়েন্টি লীগে তাকে এখনো দেখা যায়।এবারের আইপিএলেও তাঁর খেলার কথা ছিল।শেষপর্যন্ত এবারের আইপিএল থেকে তিনি সরে যান।

                                                             


সুরেশ রায়না আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে না থাকলেও ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজ করছেন।সম্প্রতি রায়না জম্মু-কাশ্মিরে পাচঁটি স্কুল ও পাচঁটি ক্রিকেট একাডেমি নির্মানের ঘোষণা দিয়েছেন।এবং ইতিমধ্যে ইন্ডিয়ার সাবেক এই গ্ৰেট অলরাউন্ডার জম্মু-কাশ্মিরের প্রশাসনের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছেন।রায়না সম্প্রতি তাঁর জম্মু-কাশ্মির ভ্রমণের কিছু ছবি সোশাল মিডিয়ায় প্রকাশ করেছেন।সূএ:বিডিক্রিকটাইম ডটকম।



রাতে ভালো ঘুমের কিছু টিপস

                                                               


                                                              

সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে রাতে ভালো ঘুমের বিকল্প নেই।রাতে ভালো ঘুম নাহলে দিনের কাজে ব্যাঘাত ঘটে সেইসাথে দেখা দিতে পারে বিভিন্ন শারীরিক জটিলতা। অনেকেই কিছু ভুলের কারণে রাতে ঘুমের সমস্যায় পড়েন।রাতে ভালো ঘুমের কিছু টিপস এখানে তুলে ধরছি।

অন্ধকার ঘরে ঘুমানো ভালো

রাতে ভালো ঘুমের জন্য ঘরের আলো নিভিয়ে ফেলুন।কারণ আলোতে রাতের ঘুম  ভালো হয়না।

ঘুমানোর পূর্বে স্নান

রাতে ভালো ঘুমের জন্য ঘুমানোর আগে স্নান করে নিন।রাতে স্নান করলে শরীরের স্ট্রেস কমে যায় ও শরীর সতেজ থাকে ফলে রাতের ঘুম ভালো হয়।

রাতে কম খান

রাতের আহার কম হলে হজমের সমস্যা হবেনা ফলে ঘুম ভালো হবে।তাই রাতে কম আহার করুন।

রাতে ব্যায়াম নয়

ভালো ঘুমের জন্য রাতের ব্যায়াম পরিহার করুন।কারণ রাতে ব্যায়াম করলে শরীরে এনার্জি বেড়ে যায় ফলে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে।ব্যায়াম করুন সকালে।

দিনে বেশি বেশি পানি পান করুন

রাতে ভালো ঘুমের জন্য দিনে বেশি বেশি পানি পান করা উচিত।সারাদিনের কাজে শরীরের আদ্রভাব কমে যায় তাই বেশি বেশি পানি পান করলে শরীর আদ্র থাকে যা রাতে ভালো ঘুমে সহায়তা করে।

দিনে অল্প ঘুমানো ভালো

সারাদিনের কর্মব্যস্ততার মাঝে অল্প ঘুমিয়ে নিলে শরীর সতেজ থাকে।আর শরীর সতেজ থাকলে রাতে ভালো ঘুম হয়।

সূএ:বৈশাখী অনলাইন

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

সবধরণের ক্যারিয়ারের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা

                                                               


                                                              

ক্যারিয়ার এক্সপার্টদের মতে প্রতিযোগিতার  এ যুগে যেকোন ক্ষেএে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য কিছু সাধারণ দক্ষতা খুব দরকারি ।এখন শুধু প্রাতিষ্ঠানিক যোগ্যতা সফল ক্যারিয়ার গড়ার জন্য যথেষ্ট নাও হতে পারে।এখানে বিখ্যাত ক্যারিয়ার এক্সপার্টদের মতামত থেকে  সবধরণের ক্যারিয়ারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু দক্ষতা সম্পর্কে আলোচনা করছি।

তথ্যপ্রযুক্তির বাস্তবজ্ঞান

এ যুগে তথ্যপ্রযুক্তির বাস্তবজ্ঞান ছাড়া সফল ক্যারিয়ার গড়া কঠিন বলেই ক্যারিয়ার এক্সপার্টদের মত।চাকরি,ব্যবসা,ফ্রিল্যান্স ইত্যাদি সব ক্যারিয়ারে তথ্যপ্রযুক্তির বাস্তবজ্ঞান এখন অপরিহার্য্য।ইমেইল,এম এস ওয়ার্ড, এমএসএক্সেল এসব জানা এখন সবধরণের ক্যারিয়ারের জন্য খুব জরুরি।

রিপোর্ট লেখার দক্ষতা

তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগেও ভালো রিপোর্ট লেখার দক্ষতা জরুরি বলেই ক্যারিয়ার এক্সপার্টদের ধারণা।যেকোন ক্ষেএে সফল ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে সৃজনশীল রিপোর্ট সম্পর্কে যথেষ্ট দক্ষতা অর্জন গুরুত্বপূর্ণ।

যোগাযোগ ও ভাষাগত যোগ্যতা

যোগাযোগ দক্ষতা ছাড়া কোন ক্ষেএেই ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব নয়।আর এর সাথে প্রয়োজন ভাষাগত দক্ষতা ।বাংলা ও ইংরেজি দুটি ভাষাই শেখা প্রয়োজন।তবে যাদের ইংরেজিতে জড়তা আছে তাদের জন্য শুদ্ধ ও মার্জিত বাংলা ভাষাই যথেষ্ট।

বিশ্লেষণী জ্ঞান

ক্যারিয়ার এক্সপার্টদের মতে যেকোন ক্যারিয়ারের জন্য বিশ্লেষণী জ্ঞান জরুরি।কারণ সবধরণের ক্যারিয়ারে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্ৰহন ও বাস্তবায়ন করতে হয়।আর এক্ষেএে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে যেকোন কাজের বহুমাএিক বিশ্লেষণ করতে হয়।ক্যারিয়ারে দক্ষতা অর্জনের জন্য তাই বিশ্লেষণী জ্ঞান গুরুত্বপূর্ণ।বিশ্লেষণী জ্ঞান থাকলে যেকোন সমস্যার সমাধান সহজ হয়ে যায়।

লিখেছেন :প্রভাকর চৌধুরী

ম্যাক্সওয়েলের নতুন অডিআই রেকর্ড

                                                             


 অষ্ট্রেলিয়ার মারকুটে ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অডিআই ক্রিকেটে এক নতুন রেকর্ড গড়েছেন।অডিআই ক্রিকেটে দ্রুততম(বলের হিসেবে) ৩ হাজার রান করার রেকর্ড গড়েছেন এ দীর্ঘদেহী অসি ব্যাটসম্যান।অডিআই ক্রিকেটে  মাএ  ২হাজার ৪৪০ বল খেলে ৩হাজার রান পূর্ণ  করলেন ম্যাক্সওয়েল।ইতিপূর্বে একদিনের আন্তর্জাতিক  ক্রিকেটে এতো কম বল খেলে ৩হাজার রান কেউ করতে পারেননি।ইংল্যান্ডের জস বাটলার এর আগে এই বিরল রেকর্ডের অধিকারী ছিলেন।বাটলার অডিআই ক্রিকেটে ২হাজার ৫৩২ বল খেলে ৩ হাজার রান পূর্ণ করেন।

অডিআই ক্রিকেটের ইতিহাসে মাএ ১৫৭ জন ব্যাটসম্যান তিন হাজার রান করার কৃতিত্ব দেখান।

অডিআই ক্রিকেটে দ্রুততম(কম বলে) ৩ হাজার রানকারী শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যান


১.গ্লেন ম্যাক্সওয়েল
২৪৪০বলে ৩ হাজার রান ।
২.জস বাটলার
২৫৩২ বলে ৩হাজার রান।
৩.জেসন রয়
২৮২৪ বলে ৩হাজার রান।
৪.জনি বেয়ারষ্টো
২৮৪২ বলে ৩হাজার রান।
৫.কপিল দেব
২৯৫৭ বলে ৩ হাজার রান।
লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী




দেখে নিন আইপিএল ২০২০ এর পূর্ণাঙ্গ সূচি

 অবশেষে বহু জল্পনাকল্পনার পর শুরু হচ্ছে আইপিএল ২০২০ এর চূড়ান্ত লড়াই।১৯সেপ্টেম্বর মাঠে গড়াচ্ছে এবারের আইপিএল। ইতিমধ্যে দলগুলো নিজেদের চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করেছে।করোনা থেকে সর্বোচ্চ নিরাপওার জন্য নেওয়া হয়েছে ব্যাপক স্বাস্থ্যসুরক্ষার ব্যবস্থা।আসুন দেখে নিই আইপিএল ২০২০ এর চূড়ান্ত সূচি।

                                                        


অপরাজিত থেকে সিপিএল শিরোপা জিতল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স

                                                               


                                                            

অপরাজিত থেকে  সিপিএল(ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ) ২০২০ এর শিরোপা জিতে নিল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।ফাইনালে ত্রিনবাগো ৮উইকেটে সেন্ট লুসিয়া জুকসকে পরাজিত করে।আসলে সেন্ট লুসিয়া জুকস ফাইনালে ত্রিনবাগোর কাছে পাওাই পায়নি।  এবারের সিপিএলে অপরাজিত থেকে শিরোপা জিতল দলটি।অবশ্য তারকা সমৃদ্ধ ত্রিনবাগো এমনিতেই এবার অন্যদলগুলো থেকে এগিয়ে ছিল।ব্রাভো,সিমন্স,পোলার্ডদের নিয়ে গড়া দলটির এমন পারফরমেন্স প্রত্যাশিতই ছিল।

                                                              

এই সিপিএলে ১২টি ম্যাচ খেলেছে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স এবং দলটি সবগুলো ম্যাচই জিতেছে।এবং বিষয়টি খুব সহজ কাজ নয়।এ নিয়ে সিপিএলের চতুর্থ শিরোপা জিতল দলটি।সেন্ট লুসিয়া প্রথমে ব্যাট করে ১৫৪ রান করে জবাবে লেন্ডল সিমন্স ও ডারেন ব্রাভোর দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১৮.১ ওভারে ২উইকেট হারিয়ে সহজেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।সিমন্স তাঁর স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে ৪৯ বল খেলে ৮৪ রান করেন ।ডারেন ব্রাভো ৪৭ বলে ৫৮ রান করেন।এবারের সিপিএলের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ত্রিনিবাগো নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক কিয়েরন পোলার্ড।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

আজ সিপিএল২০২০ এর ফাইনাল

                                                             


                                                               

আজ সিপিএল(ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ) ২০২০ এর ফাইনাল ।ফাইনালে লড়বে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ও সেন্ট লুসিয়া জুকস।আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

সেন্ট লুসিয়া জুকসের হয়ে মাঠে নামবেন ডারেন সামি,রাইলি রুশো,মো.নবি,কেসরিক উইলিয়ামস,আন্দ্রে ফ্লেচারের মত তারকা প্লেয়ার।অপরদিকে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের পক্ষে লড়বেন বেশকিছু তারকা যাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ডোয়াইন ব্রাভো,পোলার্ড,নারাইন,ডারেন ব্রাভো,লেন্ডল সিমন্স।উল্লেখ্য সিপিএল ২০১৯ এ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল সাকিব আল হাসানের বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস।

সিপিএলের চ্যাম্পিয়নদের পরিসংখ্যান

সিপিএলের চ্যাম্পিয়নদের পরিসংখ্যান এখানে তুলে ধরছি।

সিপিএল ১৩ এর চ্যাম্পিয়ন জামাইকা তালাওয়াশ।

সিপিএল ১৪ এর চ্যাম্পিয়ন বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস।

সিপিএল ১৫ এর চ্যাম্পিয়ন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।

সিপিএল ১৬ এর চ্যাম্পিয়ন জামাইকা তালাওয়াশ।

সিপিএল ১৭ এর চ্যাম্পিয়ন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।

সিপিএল ১৮ এর চ্যাম্পিয়ন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।

সিপিএল ১৯ এর চ্যাম্পিয়ন বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী


আইপিএল২০২০ এ তারকারা কে কোন দলে

                                                               


শেষপর্যন্ত হচ্ছে জনপ্রিয় ফাঞ্চাইজি টিটুয়েন্টি লিগ আইপিএল।আর এবারের আইপিএল সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনেই হবে।আইপিএলে এবার কোন তারকা কোন দলে খেলবেন আসুন জেনে নিই।

মুম্বাই ইন্ডিয়ানস

তারকাদের মধ্যে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসে খেলবেন রোহিত শর্মা(অধিনায়ক),হার্দিক পান্ডিয়া,বুমরাহ,পোলার্ড,কুইন্টন ডি কক,ট্রেন্ট বোল্ট।

চেন্নাই সুপারকিংস

এম এস ধোনি(অধিনায়ক),রবীন্দ্র জাদেজা,ওয়াটসন,ইমরান তাহির,ডু প্লেসিস,ডোয়াইন ব্রাভো,এনগিদি এবার খেলবেন চেন্নাই সুপারকিংসে।

কলকাতা নাইটরাইডার্স

কলকাতা নাইটরাইডার্সে এবার বেশকজন তারকাকে দেখা যাবে এর মধ্যে থাকবেন আন্দ্রে রাসেল,লোকি ফারগুসন,দিনেশ কার্তিক(অধিনায়ক),নারাইন,কামিন্স,মরগান ।

দিল্লি ক্যাপিটালস

তারকাদের মধ্যে দিল্লি  ক্যাপিটালসে দেখা যাবে শিকর ধাওয়ান,ঋষভ পন্ত,ইশান্ত শর্মা,রাহানে,শ্রেয়াস আয়ার(অধিনায়ক),জেসন রয়,রাবাদা,ক্রিস ওকস,শিমরণ হেটমায়ারকে।

রাজস্থান রয়ালস

আইপিএল২০২০ এ বেশকিছু তারকা থাকবেন রাজস্থান রয়ালসে এদের মধ্যে স্টিভ স্মিথ(অধিনায়ক),ডেভিড মিলার,বেন স্টোকস,জস বাটলার,জোফরা আর্সার উল্লেখযোগ্য।

কিংস ইলিভেন পাঞ্জাব

কিংস ইলিভেন পাঞ্জাবে তারকাদের মধ্যে থাকবেন কে এল রাহুল(অধিনায়ক),মো.শামি,গেইল,ম্যাক্সওয়েল,জিমি নিশাম,পুরাণ,কটরেল।

রয়াল চ্যালেঞ্জারস ব্যাঙ্গালোর

রয়াল চ্যালেঞ্জারস ব্যাঙ্গালোরে খেলবেন বেশকিছু তারকা এদের মধ্যে বিরাট কোহলি(অধিনায়ক),চাহাল,ডিভিলিয়ার্স,ফিন্স,স্টেইন,মইন আলি উল্লেখযোগ্য।

সানরাইজার্স হায়দারাবাদ

তারকাদের মধ্যে সানরাইজার্স হারদারাবাদে খেলবেন ভুবনেশ্বর কুমার,জনি বেয়ারষ্ট,ওয়ার্নার(অধিনায়ক),কেন উইলিয়ামস,নবি,রশিদ খান।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

আইপিএল থেকে সরে দাড়ালেন লাসিথ মালিঙ্গা

                                                           


  

মালিঙ্গাভক্তদের জন্য একটি দুঃসংবাদ আছে আর তাহলো এবারের আইপিএলে খেলছেন না লাসিথ মালিঙ্গা(সূএ:স্পোটর্সউইকি)।ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে এবারের আইপিএল থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন এ লঙ্কান স্পিডস্টার। আইপিএল২০০৯ থেকে আইপিএল২০২০ পর্যন্ত মালিঙ্গা মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়েই আইপিএলে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।মালিঙ্গার অনুপস্থিতি নিঃসন্দেহে আইপিএলের দর্শকদের জন্য এক বড় ধাক্কা।তবে হতাশ হবার কারণ নেই মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের দর্শকদের ।মুম্বাই ইন্ডিয়ানস এরই মধ্যে মালিঙ্গার স্থানে অষ্ট্রেলিয়ার স্পিডস্টার জেমস প্যাটিসনকে দলভুক্ত করেছে।

এবার আইপিএল দর্শকদের মালিঙ্গাবিহীন আইপিএল দেখতে হবে।পেসের সাথে দারুণ সব ইয়র্কার দিয়ে ব্যাটসম্যানদের বোকা বানানোর মালিঙ্গাস্টাইল এবার দেখা যাবে না।মালিঙ্গার স্থলাভিষিক্ত জেমস প্যাটিসনও খুবই ভালো বোলার।নিশ্চয় প্যাটিসনও মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে ভালো করবেন কারণ তাঁর সে যোগ্যতা রয়েছে।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী