WHAT'S NEW?
Loading...

কিভাবে আকর্ষণীয় সিভি প্রস্তুত করবেন

                                                         

বর্তমান কর্পোরেট কালচারের যুগে একটি সিভি বা জীবনবৃত্তান্ত পরোক্ষভাবে আপনার প্রতিনিধিত্ব করে।তাই যেকোন চাকরির সিভি তৈরির আগে প্রস্তুতি প্রয়োজন। কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকলে  সহজেই একটি আকর্ষণীয় সিভি প্রস্তুত করা সম্ভব এবং সেইসাথে নিজের আদর্শ প্রতিলিপি তৈরি সম্ভব। আসুন জেনে নেই একটি আকর্ষণীয় সিভি প্রস্তুত করার টিপস।

সাদা কাগজে কম্পিউটারে কম্পোজ করা সিভি আকর্ষণীয়


কম্পিউটারে কম্পোজ করা সিভি সবচেয়ে ভালো। এবং সিভি সাদা কাগজে ছাপা করা উচিত।সিভিতে কখনো অধিক রঙচঙা কাগজ ব্যবহার করবেন না।

চেনা ফন্ট ব্যবহার করুন


সিভি তৈরির ক্ষেত্রে পরিচিত ফন্ট ব্যবহার করুন।সিভির উপরের হেডিংয়ে CV,Resume ইত্যাদি লিখবেন না। কারণ এসব হেডিং চাকরিদাতার কাছে একঘেয়ে মনে হতে পারে।

মার্জিত ছবি ব্যবহার করুন


সিভিতে সবসময় মার্জিত ছবি ব্যবহার করা উচিত। কারণ আপনার অমার্জিত ছবি চাকরিদাতাকে বিরক্ত করতে পারে। তাই সিভি প্রস্তুত করার সময় এ বিষয়ে সতর্ক থাকবেন।

আগ্ৰহ শখ ইত্যাদি অবশ্যই উল্লেখ করুন


সিভি তৈরির সময় সতর্কতার সাথে আপনার আগ্ৰহ শখ উল্লেখ করুন। অবশ্যই মিথ্যা তথ্য দেবেন না। কারণ ইন্টারভিউতে আপনার শখ সম্পর্কে জানতে চাইতে পারে।

কভার লেটার ছাড়া সিভি মূল্যহীন


সিভির সাথে অবশ্যই কভার লেটার যুক্ত করতে হবে। কভার লেটার মানে চাকরির মূল আবেদনপত্র। মনে রাখবেন কভার লেটার ছাড়া সিভি মূল্যহীন।

সিভিতে 'আমি''আমার''আমাদের' ইত্যাদি শব্দ এড়িয়ে চলুন


সিভি তৈরি করার ক্ষেত্রে আমি, আমার, আমাদের ইত্যাদি শব্দ এড়িয়ে চলা ভালো। কারণ এসব চাকরিদাতার কাছে বিরক্তিকর মনে হতে পারে।

সিভির দৈর্ঘ্য 


সিভির দৈর্ঘ্য যেন বেশি বড় না হয়। আবার বেশি ছোট ফন্ট ব্যবহার করে সিভিকে বিরক্তিকর করাও উচিত নয়। একটি ভালো সিভি তিন থেকে পাঁচ পেজ যথেষ্ট।

মিথ্যা তথ্য দেবেন না


সিভিতে কোন মিথ্যা তথ্য দেয়া উচিত নয়। কারণ মিথ্যা তথ্য আপনার ইন্টারভিউতে ডাক পাওয়ার সম্ভাবনা কমিয়ে দিতে পারে।

চিন্তা ভাবনা করে সিভি তৈরি করুন


আকর্ষণীয় সিভি তৈরি করার আগে নিজের সব ইতিবাচক তথ্য সময় নিয়ে চিন্তা করুন। পরিকল্পনা করে সিভি তৈরি করুন। আপনার অভিজ্ঞতা, ইতিবাচক গুণ ইত্যাদি আগে লিখে রাখুন।সিভিতে অতিরঞ্জিত কিছু লেখা উচিত নয়।

প্রয়োজনীয় সব তথ্য তুলে ধরুন


আপনার ব্যক্তিগত তথ্য,শিক্ষাগত তথ্য , ঠিকানা ইত্যাদি সিভিতে উল্লেখ করুন।ফোন নম্বর, ইমেইল এড্রেস অবশ্যই যুক্ত করুন।

চাকরির উদ্দেশ্য লিখুন


আপনি কেন এ চাকরি করতে চাচ্ছেন তা সিভিতে উল্লেখ করুন। আপনার জীবনের লক্ষ্য কি তা তুলে ধরুন।

রেফারেন্স ছাড়া সিভি দুর্বল


সিভিতে অবশ্যই উপযুক্ত রেফারেন্স ব্যবহার করুন।আর রেফারেন্সের ফোন নম্বর,ইমেইল এড্রেস দিন।

সিভির কাঠামো রুচিশীল হলে ভালো


সিভির পুরো কাঠামো যেন হিজিবিজি নাহয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। কারণ সিভির কাঠামো খারাপ হলে চাকরিদাতা নিরুৎসাহিত হতে পারেন।

Written by provakar chowdhury.






টিটুয়েন্টি সুপারস্টার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল

                                                                                                                                                                               

টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের যুগে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের নাম সবাই চেনেন। দারুণ সব ম্যাচের নায়ক গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। সেই ২০১৫ বিশ্বকাপ থেকেই ম্যাক্সওয়েল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দাপটের সাথে খেলে চলেছেন। তার আগে অষ্ট্রেলিয়ার ডমেষ্টিক ক্রিকেটেও বেশ  ভালো খেলেছেন। আসুন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের কিছু অজানা তথ্য জেনে নিই।

ম্যাক্সওয়েল "দি বিগ শো" নামে পরিচিত


ম্যাক্সওয়েল টিমমেট ও দর্শকদের কাছে " দি বিগ শো" নামে পরিচিত। তবে ম্যাক্সওয়েল এ নামটি মানতে নারাজ। তিনি নিজের "ম্যাক্সি" নামটি বেশি পছন্দ করেন। এবং তিনি চান সবাই যেন তাকে এ নামে ডাকে ।

বড় ম্যাচের প্লেয়ার


ম্যাক্সওয়েল বড় ম্যাচে জ্বলে ওঠেন।বড় ম্যাচে সময়মত সঠিক কাজটি করতে সিদ্ধহস্ত এ অলরাউন্ডার।২০১৫ সালে অষ্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে তার থাকার কথা ছিল না।অথচ সেই বিশ্বকাপে তিনি অষ্ট্রেলিয়ার হয়ে ৩২৪ রান ও ৬ উইকেট দখল করেন। এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তিনি ব্যাট ও বলে সমানভাবে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করেছেন।এসব কৃতিত্ব তাকে বড় ম্যাচের প্লেয়ার হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

অষ্ট্রেলিয়ার অডিআই ও ডমেষ্টিক ক্রিকেটে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি


ম্যাক্সওয়েল পাওয়ারফুল হিটার হিসেবে স্বীকৃত। তিনি অষ্ট্রেলিয়ার ডমেষ্টিক ক্রিকেটে ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন। পরবর্তীতে জাতীয় দলের হয়েও অডিআই ক্রিকেটে মাএ ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন।

টিটুয়েন্টি ক্রিকেটে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি


হার্ডহিটার ম্যাক্সওয়েল  টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের এক আলোচিত প্লেয়ার।  টিটুয়েন্টি ক্রিকেটে  দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড  রয়েছে তার।ম্যাক্সওয়েল ২০১৪ সালে  মিরপুরে পাকিস্তানের বিপক্ষে এক টিটুয়েন্টি ম্যাচে ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরির নজির গড়েন ।

টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের সুপারস্টার ম্যাক্সওয়েল


টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয় প্লেয়ারদের মধ্যে ম্যাক্সওয়েলের নামটি থাকবেই। আন্তর্জাতিক ও ফ্রানসাইজি দুধরণের টিটুয়েন্টিতে রয়েছে তার সমান দাপট। বিশ্বের সব বড় টিটুয়েন্টি লিগে ম্যাক্সওয়েলের চাহিদা ব্যাপক।তাই তাকে বলা হয় "টিটুয়েন্টি সুপারস্টার"।

Written by provakar chowdhury.




কাঁঠালের উপকারিতা

                                                       

কাঁঠাল গ্ৰীষ্মকালের জনপ্রিয় ফল।সবার পরিচিত এ ফলটি খেতে খুবই সুস্বাদু।গ্ৰীষ্মকালের প্রায়  পুরোটা জুড়ে কাঁঠাল পাওয়া যায়। শুধু সুস্বাদু নয় এ ফলটি সবার জন্য উপকারীও। কাঁঠালের বহুমাত্রিক উপকারিতা এখানে তুলে ধরছি।

কাঁঠাল দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে


কাঁঠালে বিদ্যমান বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ উপাদান আমাদের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সহায়তা করে।তাই পুষ্টিবিদেরা শিশুদের নিয়মিত কাঁঠাল খাওয়ানোর পরামর্শ দেন।

ত্বক,দাঁত ও হাড়ের জন্য উপকারী


কাঁঠাল আমাদের ত্বক সুস্থ রাখতে কাজ করে। দাঁত ও হাড়ের জন্য  কাঁঠাল খুব উপকারী। 

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে


কাঁঠাল আমাদের শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। কারণ কাঁঠালে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম।

কাঁঠাল শরীরে শক্তি যোগায়


গ্ৰীষ্মের ফল কাঁঠাল আমাদের শরীরে প্রচুর শক্তি যোগায়। 

সবার জন্য উপকারী এক ফল


কাঁঠাল সবার জন্য উপকারী এক ফল।সববয়সের মানুষের জন্য কাঁঠাল উপযোগী।

হজমে সাহায্য করে


হজমের সমস্যা প্রায় সবার জন্য এক নৈমিত্তিক ব্যাপার । কাঁঠাল হজমের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে


কাঁঠাল অবসাদ ও দুশ্চিন্তা দূর করে মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

লিখেছেন: প্রভাকর চৌধুরী





আমের বাহারী গুণের গল্প

                                               

গ্ৰীষ্মকালিন ফল আম । খুবই সুস্বাদু এ ফলটি প্রায় সবার কাছে প্রিয়।আম একটি অর্থকরী ফলও। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এর চাহিদা রয়েছে।পুষ্টিগুণের দিক থেকেও আম এক বিশিষ্ট ফল। বিভিন্ন পুষ্টিবিদের মতামত থেকে আমের বাহারী গুণের গল্প এখানে তুলে ধরছি।

আম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে


আমে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন ও ক্যালরি যা আমাদের শরীরকে সবল রাখে।ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

কর্মশক্তি যোগাতে কাজ করে আম


আমে আছে প্রচুর ক্যালরি যা আমাদের কর্মশক্তি বাড়ায়।

 আম শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখে


আমে রয়েছে বহুমাত্রিক ভিটামিন ও খনিজ উপাদান যা সারাবছর  আমাদের শরীরকে সবল রাখতে কাজ করে

আম রক্তশূন্যতা দূর করে


শরীরের রক্তশূন্যতা দূর করতে কাজ করে আম।

স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধ করে


আমের ভিটামিন সি স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধে সক্ষম।

আম হ্নদযন্ত্রের জন্য উপকারী


আম শরীরের ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে । এছাড়া আমে রয়েছে পটাশিয়াম  যা আমাদের হ্নদযন্ত্র ভালো রাখে।

বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে আম


আমে রয়েছে বহুমাত্রিক ভিটামিন ও খনিজ যা বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

আম আমাদের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে


আমে আছে ভিটামিন এ যা আমাদের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।

Written by provakar chowdhury.







আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মজয়ন্তী

                                                 


আজ ২৫ শে মে বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মজয়ন্তী।জন্মজয়ন্তীর দিনে কবির স্মৃতির প্রতি রইল গভীর শ্রদ্ধা। নজরুল বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় রেখে গেছেন অনন্য ছাপ। এখানে কবির উল্লেখযোগ্য সাহিত্যকর্মের পরিচয় তুলে ধরছি।

কাজী নজরুল ইসলামের উল্লেখযোগ্য কাব্য


অগ্নিবীণা (১৯২২)
সঞ্চিতা (১৯২৫)
চক্রবাক (১৯২৯)
ফণীমনসা (১৯২৭)
নির্ঝর (১৯৩৯)

নজরুলের উল্লেখযোগ্য ছোটগল্প


ব্যথার দান
রিক্তের বেদন

নজরুলের উল্লেখযোগ্য উপন্যাস


মৃত্যুক্ষুধা
কুহেলিকা

নজরুলের উল্লেখযোগ্য কবিতা ও সংগীত


দোলনচাঁপা
ছায়ানট
সিন্দোহিন্দোল
জিঞ্জীর

নজরুলের উল্লেখযোগ্য সংগীতগ্ৰন্থ


বুলবুল
সন্ধ্যা
চন্দ্রবিন্দু
বনগীতি
গীতিশতদল
রাঙাজবা
সুরসাকি

নজরুলের উল্লেখযোগ্য নাট্যগ্ৰন্থ


যুগবাণী
রুদ্রমঙ্গল
রাজবন্দীর জবানবন্দী

Written by provakar chowdhury.



























ঈদের শুভেচ্ছা

                                               

PRIO CRICKETএর  পক্ষ থেকে পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীদের জানাই ঈদের শুভেচ্ছা।ঈদ সবার সুন্দরভাবে কাটুক।


গ্ৰীষ্ম বর্ষার সঙ্গী ছাতা

                                                 

ছাতা খুব দরকারি এক বস্তু।গ্ৰীষ্মের তীব্র রোদে একটু স্বস্তির জন্য ছাতা বিশ্বস্ত বন্ধু। বর্ষার বৃষ্টিতে সাথে থাকা চাই ছাতা।তবে ছাতার মধ্যেও রয়েছে ফ্যাশন ও প্রয়োজনের হিসেবনিকেশ। বাজারে রয়েছে বাহারি ডিজাইনের ছাতা। আসুন জেনে নেই ছাতার খবর।

বাজারে ছোট ও সহজে বহনযোগ্য ছাতার চাহিদা বেশি।

তুলনামূলকভাবে ম্যানুয়েল ছাতার চাহিদা কম।তবে ম্যানুয়েল ছাতা বেশি টেকসই।

অটো সুইচে চলে এমন ছাতার চাহিদা এখন বেশি।

ছাতা প্রস্তুতকারকদের মতে ১০ শিকের ছাতা আদর্শ।

ছাতার বাইরের রঙ যাইহোক ভেতরের রঙ সাদা বা ছাই রঙের হলে ভালো।

এখন রঙিন কাপড়ের ছাতা বেশি চলে।

ফ্যাশনেবল ছাতাগুলো আবার ঝড় ও তীব্র বাতাসে অসুবিধাজনক।

সুইচযুক্ত ছাতা সহজে বহনযোগ্য এবং রোদের জন্য আরামদায়ক।

সবকিছুর পর ব্যক্তিত্ব অনুযায়ী ছাতা কিনুন।

লিখেছেন:প্রভাকর চৌধুরী

গরমে ছেলেদের পোশাক

                                                   

গরমে ছেলেদের  পোশাক নির্বাচন করা এক জটিল কাজ।তবে কিছু বিষয় জানা থাকলে গরমেও সহজেই আরাম করে চলা যায়। এক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরী কাজ সঠিক কাপড় পরিধান করা।গরমে ছেলেদের পোশাক নিয়ে কিছু টিপস।

আরামদায়ক ও সঠিক মাপের পোশাক পরুন।

গরমে গাঢ় রঙের কাপড় এড়িয়ে চলুন। কারণ গাঢ় রঙের কাপড়ে গরম বেশি লাগবে।

ফ্যাশন এক্সপার্টদের মতে গরমে একই কাপড় বিভিন্ন স্টাইলে পরুন। শার্ট পাঞ্জাবি ইত্যাদি কখনো ইন কখনো ছেড়ে দিয়ে পরুন।তবে এক্ষেত্রে সঠিক মাপের পোশাক কেনা জরুরী।

গরমে সুতি কাপড় সবচেয়ে আরামদায়ক।

মানানসই সুতির পাঞ্জাবি গরমে ছেলেদের জন্য স্বস্তিদায়ক।

গরমে পরতে পারেন সুতির ফতুয়া ।

কলারসহ টিশার্ট গরমে আরামদায়ক।

ফ্যাশন এক্সপার্টদের মতে গরমে গ্যাবার্ডিনের প্যান্ট আরামদায়ক।

গরমে স্যান্ডেলের চেয়ে সুটাইপ জুতা পরুন এতে পা ভালো থাকবে।

সবকিছুর পর গরমে ব্যক্তিত্ব অনুযায়ী কাপড় পছন্দ করুন।

Written by provakar chowdhury.

এই সময়ে বাইরে যাতায়াত

                                       
                                     


এ সময়ে অনেকে বাইরে যাতায়াত করছেন। কেউ ব্যবসা কেউ চাকরির কাজে বাইরে বের হচ্ছেন। আবার ঈদের জন্য অনেকের হয়তো বাড়ি যেতে হচ্ছে।আর এসব ক্ষেএে কিভাবে  সহজে বাইরে যাতায়াত করা যায় এ নিয়ে কিছু টিপস এখানে তুলে ধরছি।

১. এ সময়ে যথাসম্ভব রিজার্ভ গাড়িতে যাতায়াত করুন। এক্ষেত্রে সিএনজি অটোরিকশা,ট্যাক্সি ক্যাব,উবার ইত্যাদি গাড়ি ভাড়া নিতে পারেন।

২.পরিচিত ক্যাব বা অটোরিকশা চালকের নম্বরটি হাতের কাছে রাখুন।

৩.উবার ইত্যাদি অ্যাপসভিওিক পরিবহন ব্যবহার করুন।

৪.বিভিন্ন পরিচিত অটো বা ক্যাব চালকের সাথে আগেই কন্টাক্ট করতে পারেন। প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করবেন।

৫.সুরক্ষা নিশ্চিত করে ব্যক্তিগত স্কুটার, মোটরসাইকেল ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।

৬.অ্যাপস ভিওিক পরিবহন কোম্পানির একাধিক অ্যাপস  হাতের কাছে রাখুন।

৭.দূরের যাতায়াতে গণপরিবহন এড়িয়ে চলুন। দূরের যাএায়  টাক্সিক্যাব জাতীয় গাড়ি ব্যবহার করতে পারেন।

৮.এই সময়ে যথাসম্ভব গাদাগাদি করে যাতায়াত না  করাই ভালো।

৮.মুখে মাস্ক ও হাতে পলিথিনের গ্লাভস পরে বাইরে বের হোন।

Written by provakar chowdhury.

করোনা সহায়তায় মুশফিক,সৌম্য, তাসকিন ও আকবরের ব্যাটবল গ্লাভস

                                             

করোনা কালে মানুষের সহায়তায় ক্রিকেটাররা নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন।ছবি:মুশফিকুর রহিম।কেউ দিচ্ছেন খাদ্য সহায়তা,কেউ করছেন প্রিয় জিনিসের নিলাম। এবং এরই ধারাবাহিকতায় মুশফিক তাঁর ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাটটি নিলামে বিক্রি করেছেন। সৌম্য সরকার তাঁর সেঞ্চুরি হাঁকানো ব্যাট করোনা সহায়তায় নিলাম করেছেন। তাসকিন তাঁর হ্যাটট্রিক করা বলটি করোনা দুর্গতদের সাহায্যার্থে নিলাম করেছেন। করোনা সহায়তায়  যুববিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক আকবর আলী তাঁর জার্সি,গ্লাভস ইত্যাদি নিলাম করেছেন।

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাটের নিলামে বেশ সাড়া পড়ে যায়। শেষমেশ পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার আফ্রিদি সেটি কিনে নেন।  মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাট কিনেছেন পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি।আফ্রিদি মুশফিকের ব্যাট ১৬ লাখ ৮০ হাজার টাকায় কিনে নিয়েছেন।

সৌম্য সরকারের সেঞ্চুরি হাঁকানো ব্যাট এবং তাসকিনের হ্যাটট্রিক করা বল নিলাম হয়েছে ৮ লাখ টাকায়।
আকবর আলীর জার্সি গ্লাভস ভিওিমূল্যের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হয়েছে।

লিখেছেন: প্রভাকর চৌধুরী

করোনা সহায়তায় মাশরাফির ব্রেসলেট

                                               

করোনাকালে বিপর্যস্ত মানবতার সহায়তায় এগিয়ে এলেন বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাশরাফির প্রিয় স্টিলের ব্রেসলেট করোনা সহায়তা জন্য নিলাম হলো। এবং বেশ চড়া দামে বিক্রি হয়েছে ম্যাশের ব্রেসলেট।১৮ বছর ধরে তাঁর হাতে থাকা ব্রেসলেটটি ক্রয় করে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বিএলএফসিএ।

মাশরাফির ব্রেসলেটের নিলামে বেশ সাড়া পড়ে যায়। শেষমেশ মাশরাফির ব্রেসলেট বিক্রি হয় ৪২ লাখ টাকায়। ব্রেসলেটটি কেনার পর আবার সেটি মাশরাফিকে গিফট করে বিএলএফসিএ।
 মাশরাফির ব্রেসলেটের সবটাকা চলে যাবে তাঁর "নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনে"। সেখান থেকে করোনা দুর্গতদের সহায়তায় এ টাকা খরচ হবে।

মাশরাফির ব্রেসলেটের ভিওিমূল্য ছিল ৫ লাখ। নিলামে ব্রেসলেটটির বিক্রি হয় ৪২ লাখ টাকায়।

Written by provakar chowdhury.

ক্রিকেটের সেরা পাঁচ কোচ

                                           


বিখ্যাত ক্রিকেটারদের নিয়ে যেভাবে মাতামাতি হয় কোচদের নিয়ে সেভাবে হয়না। কিন্তু ক্রিকেটে কোচদের ভূমিকাও বিশাল। এবং একথা বিখ্যাত ক্রিকেট সমালোচকরাও স্বীকার করেছেন। আসুন ক্রিকেটের সেরা পাঁচ কোচের খবর জেনে নেই।ছবি:গ্যারি কারস্টেন।

জন বুকানন:ক্রিকেট কোচিংয়ের এক কিংবদন্তি


অষ্ট্রেলিয়ার সাবেক কোচ জন বুকানন ক্রিকেটের ইতিহাসে এক অনন্য কিংবদন্তি। কুইন্সল্যান্ড বুলচের কোচ হিসেবে  তার কোচিং ক্যারিয়ার শুরু হয়।১৯৯৯ সালে অষ্ট্রেলিয়া ন্যাশনাল টিমের দায়িত্ব পান।তাঁর কোচিংয়ে অষ্ট্রেলিয়া ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করে।তারপর অষ্ট্রেলিয়া ২০০৬ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জয় করে। বুকাননের কোচিংয়ে অষ্ট্রেলিয়া ২০০৭ সালের বিশ্বকাপও জয় করে।তাঁর কোচিংয়ে অষ্ট্রেলিয়া ভারতের মাটিতে সিরিজ জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করে।

গ্যারি কারস্টেন: খেলোয়াড় ও কোচ দুই রূপেই সফল


দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক সফল ব্যাটসম্যান গ্যারি কারস্টেন জনপ্রিয় ও সফল এক ক্রিকেট কোচও। ক্রিকেটের সেরা কোচদের তালিকায় তাঁর নামটিও থাকবে। তাঁর কোচিংয়ে ভারত ২০১১ সালের বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করে।

ডেভ হোয়াটমোর: কোচিংয়ের জগতে এক বিস্ময়কর নাম 


অষ্ট্রেলিয়ার হয়ে মাএ সাতটি টেস্ট খেলা ডেভ হোয়াটমোর বিশ্বের অন্যতম সেরা কোচ হিসেবে স্বীকৃত। তাঁর কোচিংয়ে প্রায় আনকোরা শ্রীলঙ্কা ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করে। বাংলাদেশ তাঁর কোচিংয়ে প্রথম টেস্ট জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করে। পাকিস্তান তাঁর কোচিংয়ে ২০১২ সালের এশিয়া কাপ জেতে।

ডানকান ফ্লেচার:এক আদর্শ ক্রিকেট কোচ


সাবেক জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেটার ডানকান ফ্লেচার কোচ হিসেবে খুবই সফল এক নাম। তাঁর কোচিংয়ে জিম্বাবুয়ে ১৯৮২ সালে আইসিসি ট্রফি জয় করে। তাঁর কোচিংয়ে ইংল্যান্ড ১৮ বছর পর ২০০৫ সালে অ্যাশেজ সিরিজ জয় করে।২০১৩ সালে ভারত তাঁর কোচিংয়ে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি শিরোপা জেতে।

অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার:এক সফল ক্রিকেট কোচ


টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান কোচ হিসেবেও খুবই দামি।২০১০ সালে ইংল্যান্ড তাঁর কোচিংয়ে টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করে।অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার কোচ থাকাকালিন ইংল্যান্ড টানা তিনবার অ্যাশেজ জেতে।

Written by provakar chowdhury.




করোনা কালে কেনাকাটা

                       ‌‌ ‌‌                       


চারিদিকে করোনা প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বাজারে গিয়ে কেনাকাটা করা কিছুটা হলেও রিস্ক হয়ে যায়। তবু যারা বাজারে গিয়ে কেনাকাটা করছেন বা করবেন ভাবছেন তাদের জন্য কিছু পরামর্শ।

১.মাস্ক ছাড়া মার্কেটিংয়ে বেরোবেন না।
২.বেশি ভিড়ের মার্কেট এড়িয়ে চলুন।
৩.যে মার্কেটে ভিড় কম সেখানে মার্কেটিং করুন।
৪.করোনা প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে শিশুদের নিয়ে মার্কেটে যাবেন না।
৫.গাদাগাদি করে গাড়িতে চড়বেন না।
৬.কেনাকাটা শেষে অযথা ঘোরাফেরা করবেন না।
৭.বাসায় ফিরে আগে হাত পা সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।স্নান করলে ভালো হয়।
৮.পরনের কাপড় সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

Written by provakar chowdhury.

কেন খাবেন লিচু

                                               

লিচু একটি গ্ৰীষ্মকালিন ফল। খুবই সুস্বাদু ও পুষ্টিকর এ ফলটি অনেকের খুব প্রিয় ।স্বাদের দিক থেকে আমের পরই এর অবস্থান। আসুন জেনে নেই লিচুর বহুমাত্রিক গুণের কথা।

লিচু হ্নদপিন্ড ভালো রাখে


লিচু আমাদের হ্নদপিন্ডের জন্য খুব উপকারী এক ফল।এটি আমাদের হ্নদপিন্ডের রক্ত সঞ্চালনের পথকে নির্বিঘ্ন করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়


লিচু আমাদের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। ভিটামিন সি'র  এক বিশ্বস্ত উৎস লিচু।

ওজন কমাতে সাহায্য করে


লিচু আমাদের শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে সাহায্য করে। কারণ লিচুতে ক্যালরি খুব কম।

লিচু হজমশক্তি বৃদ্ধি করে


লিচু আমাদের হজমশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়ক। লিচুতে থাকা আঁশ ও পানি হজমশক্তি বাড়ায়।

ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক


লিচুর একটি প্রধান গুণ এটি বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে।

চোখের ছানি পড়া রোধ করে


লিচু চোখের ছানি পড়া রোধ করতে সহায়ক।

হাড় মজবুত করে


নিয়মিত লিচু খেলে আমাদের হাড় মজবুত হয়।তাই স্বাস্থ্যবিদেরা নিয়মিত লিচু খাওয়ার পরামর্শ দেন।

লিচু রক্তস্বল্পতা দূর করে


লিচু আমাদের শরীরের রক্তস্বল্পতা বা এনিমিয়া দূর করতে কাজ করে।

সতর্কতা:

১.ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অতিরিক্ত লিচু না খাওয়া ভালো।
২.লিচু অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে।
৩.প্রেগন্যান্ট নারীদের লিচু না খাওয়া ভালো।

Written by provakar chowdhury.



মাশরাফি ফিলোসফির ছাএ

                                           


বাংলাদেশের সফল ক্রিকেট অধিনায়ক  মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিশ্বের অন্যতম সেরা অডিআই বোলারদের তালিকায়  তাঁর নামটিও উচ্চারিত হয়। মাশরাফির গুণের শেষ নেই। মাশরাফি সম্পর্কে সবাই জানতে চান।তাই মাশরাফি সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য পাঠকদের  জন্য এখানে তুলে ধরছি।

মাশরাফি ফিলোসফির ছাএ


অনেকের হয়তো অজানা মাশরাফি ফিলোসফির ছাএ।ম্যাশ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ( ২০০৩-০৪ সেশন) ফিলোসফিতে উচ্চশিক্ষা গ্ৰহন করেন।

মাশরাফির প্রথম টেস্ট শিকার গ্ৰান্ট ফ্লাওয়ার


মাশরাফি  জিম্বাবুয়ের গ্ৰেট ব্যাটসম্যান গ্ৰান্ট ফ্লাওয়ারকে আউটের  মাধ্যমে তার প্রথম টেস্ট উইকেট লাভ করেন।

ক্রিকেটে হঠাৎ উথ্থান


মাশরাফির ক্রিকেটে উথ্থান বেশ চমকপ্রদ। তিনি বাংলাদেশ এ দলের হয়ে  এক ম্যাচ খেলেই জাতীয় দলে সুযোগ পান।তারপর তাকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি।

ওয়েষ্ঠইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টজয়


মাশরাফির নেতৃত্বে বাংলাদেশ  টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবার ওয়েষ্ঠইন্ডিজের বিপক্ষে জয়লাভ করে।

ইনজুরিতে বাধাগ্ৰস্থ ক্যারিয়ার


মাশরাফির ক্রিকেট ক্যারিয়ারে বারবার ইনজুরি হানা দিয়েছে। এমনকি একসময় অনেকে তার ক্যারিয়ারের শেষও দেখে ফেলেন।তবু তিনি বারবার মাঠে ফিরেছেন।

বড় ম্যাচের খেলোয়াড়


মাশরাফিকে বলা হয় বড় ম্যাচের খেলোয়াড়।বাংলাদেশ তার নৈপুণ্যে বড় বড় ম্যাচে জয় পেয়েছে।

বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক


পরিসংখ্যান এবং সাফল্যের বিবেচনায় মাশরাফিকে বাংলাদেশের সেরা অধিনায়কের স্বীকৃতি দেয়া হয়।

বাংলাদেশের সেরা অডিআই বোলার


আন্তর্জাতিক ম্যাচের পারফরম্যান্স ও দেশের পেস বোলারদের রেকর্ড বিবেচনায় তিনি বাংলাদেশের সেরা অডিআই বোলার হিসেবে স্বীকৃত।

Written by provakar chowdhury.

হাইস্কোরিং টিটুয়েন্টি ম্যাচের খোঁজে

                                               


টিটুয়েন্টি ক্রিকেট সত্যিই এক ধাঁধা। অডিআই ক্রিকেটে যেখানে বহু ম্যাচে হাতে উইকেট রেখে দু'শ রান করা কঠিন হয়ে যায় সেখানে কোন কোন টিটুয়েন্টি ম্যাচে আড়াইশ রানও মামুলি হয়ে ওঠে। আসুন জেনে নিই কিছু হাইস্কোরিং টিটুয়েন্টি ম্যাচের খবর।

অষ্ট্রেলিয়া - শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ২০১৬


টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা স্কোর ছিল পাল্লেকেলের এ ম্যাচে । যেখানে অষ্ট্রেলিয়া ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৬৩ রান করে।সেই ম্যাচে অষ্ট্রেলিয়ার দুর্দান্ত ব্যাটিং নিঃসন্দেহে টিটুয়েন্টি ক্রিকেটের এক আলোচিত স্মারক।

ভারত - শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ২০১৭


ইন্দোরে অনুষ্ঠিত  ভারত ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার এই ম্যাচে  ভারত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৬০ রানের বড় স্কোর করে।

ভারত - ওয়েষ্ট ইন্ডিজ ম্যাচ ২০১৬


২০১৬ সালে লুডারহিলে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৪৪ রান সংগ্রহ করে।


নিউজিল্যান্ড - অষ্ট্রেলিয়া ম্যাচ ২০১৮


নিউজিল্যান্ড ও অষ্ট্রেলিয়ার মধ্যে টিটুয়েন্টি ম্যাচ সবসময়ই এক অন্যরকম কিছু।২০১৮ সালে অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের স্কোরকার্ড ছিল ২৪৩/৫।

দক্ষিণআফ্রিকা - ইংল্যান্ড ম্যাচ ২০১৯


সেঞ্চুরিয়নে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচকে  টিটুয়েন্টি ব্যাটিংয়ের এক অবিস্মরণীয় স্মারক বলা যায় ।দক্ষিণ আফ্রিকা ঐ ম্যাচে ২০ ওভারে ৬উইকেট হারিয়ে ২৪১ রানের রানের পাহাড় গড়ে।

Written by provakar chowdhury.

আজ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মজয়ন্তী

                                                 

আজ ২৫শে বৈশাখ , বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মজয়ন্তী।এই দিনে PRIO CRICKET এর পক্ষ থেকে কবির স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। এবং সেইসাথে এখানে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উল্লেখযোগ্য সাহিত্যকর্ম সম্পর্কে কিছু তথ্য তুলে ধরছি।

জন্ম: ২৫শে বৈশাখ,১২৬৮ বঙ্গাব্দ(৭ই মে, ১৮৬১খ্রিষ্টাব্দ)।
মৃত্যু: ২২শে শ্রাবণ,১৩৪৮ বঙ্গাব্দ (৭ইআগষ্ট,১৯৪১ খ্রিষ্টাব্দ)।
জন্মস্থান: জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি, কলকাতা।
রবীন্দ্রনাথের বিভিন্ন অভিধা: কবিগুরু, গুরুদেব,বিশ্বকবি।
ছদ্মনাম: ভানুসিংহ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথের প্রথম প্রকাশিত রচনা:'অভিলাষ' কবিতা (১৮৭৪ সালে তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় প্রকাশিত)
কবিতা লেখা শুরু: ৮ বছর বয়সে।
নোবেল পুরস্কার:১৯১৩ সালে তাঁর গীতাঞ্জলি কাব্যগ্ৰন্থের ইংরেজি অনুবাদ(song offerings)  নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়।

তাঁর সাহিত্যকর্ম:


কাব্যগ্ৰন্থ:৫২টি
নাটক    :৩৮টি
উপন্যাস:১৩টি
প্রবন্ধ ও গদ্যসংকলন :৩৬টি
ছোটগল্প:৯৫টি
গান/গীতিকবিতা:১৯১৫টি
আঁকা ছবি:প্রায় ২ হাজার।

Written by provakar chowdhury.



করোনা কালে অফিস ও নিজের সুরক্ষা

                                           

করোনা প্রাদুর্ভাবের কালেও অনেক পেশাজীবীর অফিস করতে হচ্ছে।বিশেষত পুলিশ, প্রশাসনিক কাজে কর্মরত,ব্যাংকার,স্বাস্থ্যকর্মী, সংবাদকর্মী, বিভিন্ন কলসেন্টারের কর্মী, পোশাকশ্রমিক এক্ষেত্রে অগ্ৰগণ্য। আসুন করোনা কালে দায়িত্ব পালনের সময়  অফিস ও নিজের সুরক্ষার উপায় জেনে নেই।

√ অফিসে যাবার আগে মাস্ক পরে নিন।
√অফিসের কাজের সময় মাস্ক ব্যবহার করুন।
√সহকর্মীদের সাথে দূরত্ব বজায় রেখে বসুন।
√কাজের সময় হাতে পলিথিনের গ্লাভস ব্যবহার করুন।
√কাজের শেষে গ্লাভস মুখবন্ধ ডাষ্টবিনে ফেলে দিন।
√অফিসের ডেস্ক পরিছন্ন রাখুন।
√প্রতিদিন ধোয়া ও পরিছন্ন কাপড় পরে অফিসে যান।
√অফিসে এসেই প্রথমে সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধোয়ে নিন।
√অফিসের বাইরের কাজ ফোনে বা অনলাইনে সেরে ফেলুন।
√আপাতত বাইরের অতিথিদের অফিসে আসতে নিরুৎসাহিত করুন।

Written by provakar chowdhury.

এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন ব্রায়ান লারা

                                                                 


 আজকের এইদিনে (মে  মাসের ২তারিখে) জন্মগ্রহণ করেন ক্রিকেটের ক্ষণজন্মা ব্যাটসম্যান ব্রায়ান লারা।PRIO CRICKETএর পক্ষ থেকে লারাকে জন্মদিনের প্রতুল শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আসুন জেনে নেই লারার অজানা কিছু ক্রিকেটীয় কীর্তি।

√ব্রায়ান লারা প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিক।১৯৯৪সালে এজবাষ্টনে এক ইংলিশ কাউন্টি ম্যাচে তিনি ৫০১ রান করেন।

√টেষ্ট ক্রিকেটের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিকও ব্রায়ান লারা।২০০৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এন্টিগায় তিনি ৪০০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন।

√টেষ্ট ক্রিকেটে এক ওভারে সর্বাধিক রান সংগ্রহের কৃতিত্ব রয়েছে তার।

√লারা ৩৪টি টেষ্ট সেঞ্চুরি এবং ১৯টি অডিআই সেঞ্চুরির মালিক।

√টেষ্টে  লারার সবোর্চ্চ  ব্যক্তিগত ইনিংস অপরাজিত ৪০০।

√অডিআই ক্রিকেটে লারার সবোর্চ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস ১৬৯ রানের।

Written by provakar chowdhury.


করোনা কালে অনলাইন কেনাকাটা

                                             


করোনা আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ছন্দপতন ঘটিয়েছে একথা না বললেও সবাই বুঝি।তবে জীবনের প্রয়োজন থেমে নেই। এক্ষেত্রে জনসমাগম এড়িয়ে নিরাপদ কেনাকাটার জন্য অনলাইন মার্কেটপ্লেস হতে পারে আপনার বাজার সঙ্গী। বাংলাদেশে অনলাইন মার্কেটপ্লেস হিসেবে বেছে নিতে পারেন আজকেরডিল ডটকম,দারাজ ডটকম, অথবা ডটকমের মত সুপরিচিত মার্কেট।তবে অনলাইনে ইলেকট্রনিক্স পণ্য ক্রয়ের আগে বিক্রয়োত্তর সেবার দিকটি ভালো ভাবে জেনে নেবেন।

আজকেরডিল ডটকমে কেনাকাটা


প্রায় ঘরবন্দি এ সময়ে অনলাইনে কেনাকাটার জন্য বেছে নিতে পারেন আজকেরডিল ডটকম (ajkerdeal.com)। এখানে প্রায় সবধরণের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সমাহার রয়েছে। আজকেরডিল ডটকমে পাবেন হোম ডেলিভারি,ক্যাশ অন ডেলিভারি, মোবাইল পেমেন্ট ইত্যাদি সুবিধা।

দারাজ ডটকমে রয়েছে কেনাকাটার সুযোগ


অনলাইনে জরুরী কেনাকাটার জন্য বেছে নিতে পারেন দারাজ ডটকম (daraz.com)।দারাজে বিভিন্ন অফার থেকে বেছে নিতে পারেন আপনার কাঙ্ক্ষিত পণ্য। এখানে রয়েছে হোম ডেলিভারি,ক্যাশ অন ডেলিভারি, মোবাইল পেমেন্ট ইত্যাদি সুবিধা।

করোনা কালে অথবাডটকম হতে পারে পছন্দের মার্কেটপ্লেস


করোনা প্রাদুর্ভাবের কালে অনলাইন কেনাকাটার জন্য অথবাডটকম (othoba.com) হতে পারে দারুণ এক মার্কেটপ্লেস। এখানে প্রায় সবধরণের পণ্য পাবেন।আপনার বাজেট অনুযায়ী যেকোন পণ্য বেছে নিতে পারবেন। এখানে রয়েছে হোম ডেলিভারি, ক্যাশ অন ডেলিভারি, মোবাইল পেমেন্ট ইত্যাদি সুবিধা।

Written by provakar chowdhury.