WHAT'S NEW?
Loading...

ড্যাসিং অলরাউন্ডার যুবরাজ সিংয়ের ক্রিকেটজীবন ও অন্যান্য


                 
ইউটিউব ও অন্যান্য অনলাইন মিডিয়ার যুগে এখনও ক্রিকেটের দর্শকরা যুবরাজ সিংয়ের ড্যাসিং ইনিংসগুলো দেখতে চায়। ক্রিস গেইলের সাথে   তুলনীয় এ হাডহিটার একসময় ইন্ডিয়ার দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিশ্বকাপ জয়ে অবদান রাখেন। ক্রিকেটের বহু বিরল রেকর্ডের মালিক এ ইন্ডিয়ান অলরাউন্ডার। ২০০৭ টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপে স্টুয়ার্ড ব্রডের ৬বলে ৬ ছক্কার রেকর্ড রয়েছে তার। আরও চমকপ্রদ তথ্য হলো তাকে শুধু ওয়ানডে প্লেয়ার হিসেবে ইন্ডিয়ার ন্যাশনাল টিমে নেয়া হয়েছিল। তবে পরবর্তীতে ইন্ডিয়ার সবধরণের ক্রিকেটে তিনি অপরিহার্য হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। ক্রিকেটে সফল হাডহিটারদের তালিকায়  তার নাম থাকবেই। ফিল্ডার হিসেবেও তিনি বিশ্বসেরাদের তালিকায় সর্বদা থাকবেন। এখানে যুবরাজ সিংয়ের ক্রিকেটজীবনের খোঁজখবর চলবে।

জন্ম ও ক্রিকেটের শুরু:


যুবরাজ সিং  ১৯৮১খ্রিষ্টাব্দের ১২ডিসেম্বর ভারতের চন্ডীগড়ে জন্মগ্ৰহন করেন। মূলত বাঁহাতি হাডহিটার ব্যাটসম্যান। বোলার হিসেবে তিনি বাঁহাতি অর্থডক্স ঘরানার। তিনি অলরাউন্ডার ও অসাধারণ ফিল্ডার হিসেবে বিশ্বস্বীকৃত। যুবরাজ ইন্ডিয়া তথা বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বকালের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার হিসেবে সমাদৃত।

যুবরাজ সিংয়ের কিছু ক্রিকেটীয় কীর্তি:


√২০০০খ্রিষ্টাব্দে ওয়ানডে ক্রিকেটার হিসেবে তার ক্যারিয়ার শুরু হয়।
√তিনি ২০০৭খ্রিষ্টাব্দে ইন্ডিয়ার টিটুয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।সে বিশ্বকাপে স্টুয়ার্ড ব্রডের ৬বলে ৬ছক্কার বিরল রেকর্ড গড়েন।
√আইপিএলে প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে তিনি সবোর্চ্চ দামে দলভুক্ত হন।
√২০১১বিশ্বকাপ ক্রিকেটে তার অনন্য পারফরম্যান্স ক্রিকেটামোদীদের মুগ্ধ করে। তার অসাধারণ নৈপুণ্যে ইন্ডিয়া সেবছর বিশ্বকাপ জেতে। যুবরাজ ঐ বিশ্বকাপে অসাধারণ অলরাউন্ডিং নৈপুণ্যের জন্য ম্যান অফ দা টুর্নামেন্ট হবার কৃতিত্ব অর্জন করেন।
√২০১১বিশ্বকাপে যুবরাজ এক ম্যাচে ৫০রান ও ৫ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন।এটি বিশ্বকাপে তার এক অনন্য রেকর্ড।
√যুবরাজ সিং ওয়ানডে ক্রিকেটে ১৪সেঞ্চুরির পাশাপাশি ১১১টি উইকেট নেন। তার  সবোর্চ্চ অডিআই ইনিংস ১৫০ রানের ও সেরা অডিআই বোলিং ৩১রানে ৫উইকেট(৫/৩১)।

Written by provakar chowdhury.